আইপিএল ফিক্সিংয়ে জড়িত সালমান খানের ভাই!

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) ম্যাচ গড়াপেটার কাহিনি আজ নতুন কিছু না। অনেক বড় বড় স্বনামধন্য মানুষের নামও বিভিন্ন সময়ে উঠে এসেছে আইপিএলের ম্যাচ গড়াপেটায় জড়িত থাকার কারণে।

এবার অভিযুক্ত হলেন আরেক বলিউড সেলিব্রেটি আরবাজ খান। ছবিতে অভিনিয়ের পাশাপাশি একাধারে ছবির প্রযোজক, পরিচালনাও করেন আরবাজ খান। তবে সব চেয়ে বেশি যে কারণে মানুষ তাকে চেনে তা হয়ত বলিউড সুপারস্টার সালমান খানের ভাই বলে।

আজ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মুম্বাইয়ের ‘থানে’ থানায় ডেকে আনা হয় আরবাজ খানকে। সেখানেই ম্যাচ গড়াপেটা নিয়ে মৌখিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় এই বলিউড স্টারকে।

জিজ্ঞাসাবাদ নিয়ে আরবাজ খান বলেন, ‘আমার বক্তব্য রেকর্ড করা হয়েছে। তদন্তের জন্য যা যা দরকার পুলিশ আমাকে সেসব প্রশ্ন করেছে এবং আমি সব কিছুর উত্তরই দিয়েছি। আর আমি আগামীতেও তাদের এ ব্যাপারে সাহায্য করব।’

আরবাজ খান সম্পর্কে ২ কোটি ৮০ লক্ষ টাকার বাজি খেলার অভিযোগ আনা হয়েছে। পুলিশের অভিযোগ মতে, এই ২ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা বাজি হেরে বসেন আরবাজ। আর সেই অর্থ সনু জালান নামক বুকিকে বুঝিয়ে না দেওয়ায় কিছুদিন ধরেই আরবাজ খানকে হুমকি দিয়ে আসছিল সে।

সনু জালান মূলত বড় বড় স্টারদের পরোক্ষভাবে সাহায্য করে বাজি ধরতে। তবে তার সব চেয়ে বড় পরিচয় এই যে, সে ভারতের বিখ্যাত ডন দাউদ ইব্রাহিমের অন্যতম সহযোগী। আর সনু জালানকে গ্রেফতারের পর থেকেই বেরিয়ে আসতে থাকে এসব চাঞ্চল্যকর তথ্য।

মূলত, প্রায় ৬ বছর ধরেই ম্যাচ গড়াপেটার সঙ্গে জড়িত আরবাজ খান, এ প্রমাণও পেয়েছে পুলিশ। থানে থানার সিনিয়র ইন্সপেক্টর প্রদীপ শর্মা নিশ্চিত করেছেন এসব তথ্য। তিনি বলেছেন, সনু জালানকে গ্রেফতারের পর আমরা আরবাজ খানকে থানায় আসার জন্য চিঠি পাঠাই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য; আর সেখানে আরবাজ খানের সম্প্রিক্ততার প্রমাণও মিলেছে।

এখন দেখার বিষয়, ম্যাচ গড়াপেটার বিষয়টি পুরোপুরি প্রমাণ করতে পারে কি-না পুলিশ। এর আগেও আরেক বলিউড অভিনেতা বিন্দু দারা সিং ম্যাচ গড়াপেটার দায়ে ২০১৩ সালে গ্রেফতার হন, আপাদত তিনি জামিনে আছেন।

Print Friendly, PDF & Email