“আমি কোনও দিনই কপিল হতে চাই না”, বললেন হার্দিক

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কভারতীয় ক্রিকেট দলের পেস বোলিং অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়াকে সাম্প্রতিক সময়ে শোনা গিয়েছে নানান সমালোচনা। স্বদেশী সুনীল গাভাস্কার, হরভজন সিং থেকে শুরু করে ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তী মাইকেল হোল্ডিং পর্যন্ত পান্ডিয়াকে বিদ্ধ করেছিলেন সমালোচনার তীরে।

পান্ডিয়ার সাথে ভারতীয় কিংবদন্তী কপিল দেবের সাথে তুলনায় ক্ষেপেছিলেন গাভাস্কার। হরভজন-হোল্ডিং পান্ডিয়ার এক হাত নিয়েছিলেন দলে তার অবদানের প্রশ্ন তুলে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম দুই টেস্টে পুরোপুরি ব্যর্থ ছিলেন পান্ডিয়া। ফলে সমালোচনা ছিল অবধারিতই।

তবে ট্রেন্টব্রিজে তৃতীয় ম্যাচে পান্ডিয়ার হাত ধরেই ঘুরে দাঁড়িয়েছে সফরকারীরা। মাত্র ২৯ বলের স্পেলে পাঁচ উইকেট নিয়ে ইংল্যান্ডকে ১৬১ রানে আটকে রাখার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন পান্ডিয়া। দ্বিতীয় দিনে ভারতের নায়ক পান্ডিয়াই। দিনের খেলা শেষে যথাযথ জবাবও দিয়েছেন তার বিপক্ষে করা সকল সমালোচনার।

গাভাস্কারের মতো পান্ডিয়া নিজেও বিব্রত কপিল দেবের সাথে তাকে তুলনা দেয়ায়। একইসাথে তিনি এও জানান যে তিনি কখনোই কপিল দেব হতে চাননি। উৎসুক সমর্থকরাই তাকে কপিল দেবের সমকক্ষ করার চেষ্টা করে।

পান্ডিয়া বলেন, ‘মূল সমস্যাটা হচ্ছে যখন কপিল দেবের সাথে তুলনা করা হয় তখন সবই ঠিক। কিন্তু যখনই আমি ব্যর্থ হই তখনই বলা শুরু হয় সে (হার্দিক) কপিল দেব নই। আমি নিজেই কখনো কপিল দেব হতে চাইনি। আমি আমার মতই হতে চাই। হার্দিক হয়েই আমি ৪০ ওয়ানডে ও ১০টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছি, কপিল দেব হয়ে নয়। তারা তাদের সময়ের কিংবদন্তী খেলোয়াড়। আমাকে পান্ডিয়াই থাকতে দেন। আমার সাথে কারো তুলনা না করাই শ্রেয়।’

এসময় হরভজন-হোল্ডিংয়ের করা সমালোচনার জবাবে পান্ডিয়া বলেন, ‘কে কি বলে আমি তাতে কান দেই না। আমার ব্যাপারে কাউকে চিন্তা করতে হবে না। আমি জানি আমার করণীয় কি। আমার দল আমাকে সবসময় সমর্থন করে। এটাই মূল ব্যাপার। আর সত্যি বললে আমি কখনোই মানুষের কথায় কান দেই না।’

Print Friendly, PDF & Email