ইনজুরিতে শঙ্কায় সালাহর বিশ্বকাপ

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কবিশ্বকাপ বাছাইপর্বে অনেকটা একা হাতেই নিজ দেশকে মূলপর্বের টিকিট পাইয়েছিলেন লিভাপুলের মিশরীয় তারকা মোহাম্মদ সালাহ। আসন্ন বিশ্বকাপে পুরো মিশরের আশা ভরসার প্রতীকও ছিলেন ২৫ বছর বয়সী এই ফুটবলার। কিন্তু উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে পাওয়া কাঁধের ইনজুরির কারণে সেই সালাহই এখন অনিশ্চিত রাশিয়া বিশ্বকাপে।

কিয়েভের ফাইনাল ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদের সাথে সমানে লড়ছিলো লিভারপুল। ম্যাচের ২৭তম মিনিটে খেলার ধারার বিপরীতে সালাহকে ফাউল করে বসেন রিয়াল অধিনায়ক সার্জিও র‍্যামোস। কাঁধের ব্যাথায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন সালাহ। প্রাথমিকভাবে এই ফাউলের প্রভাব এতোটা তীব্র বোঝা না গেলেও, মিনিট পাঁচেক বাদে আর না পেরে মাঠ ছাড়তে বাধ্য হন সালাহ।

ধারাভাষ্য কক্ষে তখনই বলাবলি চলছিল হয়তো রাশিয়া যাওয়া হবে না সালাহর। পুরো ম্যাচ জুড়েই ছিল সালাহর ইনজুরি নিয়ে উৎকণ্ঠা। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে সকলের অপেক্ষার অবসান ঘটান লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ। তবে তিনি কোন ভালো খবর দিতে পারেননি। ম্যাচ চলাকালীন সময়েই কিয়েভের স্থানীয় হাসপাতালে প্রাথমিক পর্যবেক্ষণ করা হয় সালাহকে। সেই পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতেই সংবাদ সম্মেলনে এসে সকলকে সালাহর ব্যাপারে জানান লিভারপুল কোচ।

ক্লপ বলেন, ‘আমি আপাতত এটুকু বলতে পারি যে ইনজুরি খুবই গুরুতর! হ্যা অনেক বেশি গুরুতর। তার এক্স-রে করা হচ্ছে। এটা হয়তো কাঁধের সংযোগস্থলের বা ঘাড়ের হাড়ের ইনজুরি। তবে যেটাই হোক, খুবই গুরুতর ইনজুরি। তার অবস্থা একদমই ভালো মনে হচ্ছে না।’।

কাঁধ বা ঘাড়, যেই ইনজুরিই হোক, অন্তত ৪-৬ সপ্তাহ নিশ্চিতভাবেই মাঠের বাইরে থাকতে হবে সালাহকে। আর এদিকে মাত্র আড়াই সপ্তাহ বাকি বিশ্বকাপের খেলা শুরুর। এমতাবস্থায় অভাবনীয় কিছু না হলে নিজেদের স্বপ্নের রাজপুত্রকে ছাড়াই বিশ্বকাপের মূলপর্বে নামতে বাধ্য হবে মিশর।

Print Friendly, PDF & Email