একটা সময় আমি বার্সেলোনায় বসে কাঁদতাম : মেসি

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কবিশ্বকাপ শুরুর অন্তিম লগ্নে দাঁড়িয়ে লিয়োনেল মেসির মাথায় ঘুরছে অবসরের ভাবনা। একই সঙ্গে তিনি ফিরে যাচ্ছেন দু’বছর আগের এক ঘটনায়। যা তাঁকে কাঁদিয়েছিল। যা তাঁকে এখনও যন্ত্রণা দেয়।

কিন্তু আরও একটা ঘটনা তাঁকে ধাক্কা দিয়েছিল। যার জন্য বার্সেলোনায় বসে কাঁদতে হয়েছে মেসিকে।

কী সেই ঘটনা? মেসি জানিয়েছেন, কর ফাঁকি মামলায় যে ভাবে তাঁকে আক্রমণ করা হয়েছিল, তা তিনি সহ্য করতে পারেননি।

‘‘একটা সময় আমি তো বার্সেলোনায় বসে কাঁদতাম। মনে হত, কেন এই অবস্থার মধ্যে পড়তে হল?’’

মেসি আরও যোগ করেন, ‘‘আমি হয়তো পুরোপুরি অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়িনি, কিন্তু ওরা আমাকে যে ভাবে আক্রমণ করেছিল, যে ভাবে আমার বাবা এবং ঘনিষ্ঠদের সম্পর্কে খবর প্রকাশ করা হয়েছিল, তা মেনে নেওয়া যায় না। মনে হচ্ছিল, চার দিক থেকে আমাকে আক্রমণ করা হচ্ছে। খুব কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলাম তখন।’’

এ ক্ষেত্রে মেসি ইঙ্গিত করেছেন মাদ্রিদের সংবাদমাধ্যমের দিকে। কর ফাঁকি মামলায় মেসির ২১ মাস কারাবাস এবং জরিমানা হয়েছিল। কিন্তু স্প্যানিশ আইন অনুযায়ী, হিংসাত্মক অপরাধ ছাড়া দু’বছরের কম কারাদণ্ড হলে জেল খাটতে হয় না। মেসিকেও হয়নি। কিন্তু এটা পরিষ্কার, সেই ঘা এখনও যন্ত্রণা দেয় ফুটবলের রাজপুত্রকে।

তবে মেসি কৃতজ্ঞ বার্সেলোনা ক্লাবের কাছে। এই মুহূর্তে কর ফাঁকি বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছেন তাঁর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোও। রোনাল্ডোর ক্ষোভ, মেসির পাশে বার্সা যে ভাবে দাঁড়িয়েছিল, রিয়াল মাদ্রিদ সে ভাবে তাঁর পাশে দাঁড়াচ্ছে না। মেসিকে এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘‘আমি সে দিক দিয়ে ভাগ্যবান।’’ এর পরে যোগ করেন, ‘‘আমার পাশে আমার পরিবারের লোকজন ছিল, বার্সার লোকজন ছিল। আমার ভাগ্য ভাল ছিল।’’ 

মাঠের বাইরে দু’জনে একই বিতর্কে জড়িয়েছেন। আবার মাঠের মধ্যে দেখা গিয়েছে, মেসি এমন এক অস্ত্র রপ্ত করার চেষ্টা করছেন, যা দেখা গিয়েছে রোনাল্ডোর তূণেই। বাইসাইকেল কিক।

Print Friendly, PDF & Email