এবারের ঢাকা লিগ ছিল আমার কাছে স্মরণীয় : মাশরাফি

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক : শেষ ম্যাচে এসে খুব বেশি উইকেট পেলেন না। মাত্র ১জন ব্যাটসম্যানকে পেরেছেন সাজঘরের পথ দেখাতে। তবুও মাশরাফি বিন মর্তুজার দল জিতেছে বিশাল বড় ব্যবধানে। লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জকে তারা হারিয়েছে ৯৪ রানের বড় ব্যবধানে। ৩৭৪ রান করে রূপগঞ্জের সামনে অনেক বড় চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেও তারা ২৮০ রান পর্যন্ত গিয়ে থেমে যায়।

এই ম্যাচের ১ উইকেট দিয়ে এবারের লিগে মাশরাফির মোট উইকেট সংখ্যা দাঁড়াল ৩৯টি। আগের ম্যাচেই ৩৮ উইকেট নিয়ে কোনো এক সিঙ্গেল লিগে সর্বাধিক উইকেট শিকারের রেকর্ড গড়েছিলেন মাশরাফি। এবার সেটাকে বাড়াতে পেরেছেন আর মাত্র ১টি। নিজে অধিনায়ক হিসেবে খেলেননি। খেলেছেন নাসিরের নেতৃত্বে। এ কারণে চাপটাও ছিল না মাশরাফির কাঁধে। সম্পূর্ণ রিল্যাক্স হয়ে খেলতে পেরেছেন। এ কারণে মাশরাফি জানালেন, এবারের লিগটা তার কাছে ছিল স্মরণীয়।

রূপগঞ্জকে হারানোর পর বিকেএসপিতে মিডিয়ার মুখোমুখি হয়ে মাশরাফি বলেন, ‘আমি যখন ক্যারিয়ার শুরু করেছিলাম, তখন বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের স্বর্ণ সময় এবং এই প্রিমিয়ার লিগই ছিল আমাদের সবেদন নীলমনি। আমরা সবাই এই আসরটির দিকেই তাকিয়ে থাকতাম। তাই প্রিমিয়ার লিগের আবেদন আমার কাছে সব সময়ই অনেক বড়।’

আগের অন্যসব আসরের মত মাশরাফি এই আসরও বেশ উপভোগ করেছেন। সেটাই উঠে আসলো তার কথায়। তিনি বলেন, ‘আগের মত আমিও এই আসর সব সময় উপভোগ করেছি। তাই প্রিমিয়ার লিগে চ্যাম্পিয়ন হওয়াটা আমার কাছে একটা অন্যরকম বাড়তি আনন্দ। সাধারণত উচ্ছাস-আবেগ আমাকে খুব একটা স্পর্শ করে না। তবে প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন হতে পারলে আমার সব সময়ই ভালো লাগে। সত্যি বলতে কী, এবারও চ্যাম্পিয়ন হয়ে খুব ভালো লাগছে।’

এবারের আসরটা মাশরাফির কাছে স্মরণীয়। অনেক কারণেই তার কাছে এটা ভালো লাগার কারণ। তিনি বলেন, ‘এবারের প্রিমিয়ার লিগটা আমার কাছে অনেক কারণেই একটা ভালো লাগার টুর্নামেন্ট হয়ে থাকবে। আমি যতগুলো লিগ খেলেছি, তার মধ্যে নিঃসন্দেহে এটা অন্যতম স্মরণীয় এবং সেরা লিগ। প্রচুর প্রতিদ্বন্দ্বীতা ছিল। আমরা আট-দশজন জাতীয় দলের খেলোয়াড় নিয়ে দল গড়েও অনেক সংগ্রামের পর চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। আমার মনে হয়, আবাহনী সন্দেহাতীতভাবে কাগজে-কলমে এক নম্বর দল ছিল। তবে মাঠে নিজেদের সেরা প্রমাণ করতে আমাদের শেষ ম্যাচ পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকতে হয়েছে। সামগ্রিকভাবে এবার খুবই প্রতিদ্বন্দ্বীতা হয়েছে। উইকেটও খুব ভালো ছিল।’

নিজ দলের নাজমুল হোসেন শান্তর উচ্চসিত প্রশংসা করে মাশরাফি বলেন, ‘শান্তকে এখনই জাতীয় দলে নেয়ার কথা বলছি না। ওর সামনে প্রচুর সময় আছে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার। তবে সে দারুণ খেলেছে। এনামুল হক বিজয়ও ভালো খেলেছে। আজ (বৃহস্পতিবার) সেঞ্চুরি করতে না পারলেও, ভালো খেলেছে এবং লিগে তার খেলা আমার দারুণ পছন্দ হয়েছে।’

বয়স হয়ে গেছে অনেক। খেলাই ছেড়ে দেয়ার কথা। ধীরে ধীরে শরীরও ভারি হয়ে উঠছে। এমন বয়সেও সর্বাধিক উইকেট শিকারী মাশরাফি। তার কাছে এটা খুব ভালো লাগার। মাশরাফি বলেন, ‘মধ্য তিরিশে দাঁড়িয়েও প্রিমিয়ার লিগে সর্বাধিক উইকেট শিকারী হতে পেরে ভালো লেগেছে এই কারণে যে, আমি এখন ৫০ ওভারের ফরম্যাটের বাইরে আর কিছু খেলি না। সে ফরম্যাটে ভালো করার চেষ্টা ছিল।’

ঢাকা লিগে শিরোপা জয়ের রেকর্ড বেশি। এটার রহস্য কী? জানতে চাইলে মাশরাফির হাস্যোজ্জল ব্যাখ্যা, ‘এটা ভাগ্য।’

Print Friendly, PDF & Email