এশিয়ান গেমসে ভাল করার প্রত্যাশা বাংলাদেশের

স্পোর্টস লাইফ, প্রতিবেদক : চলতি মাসের ১৮ আগস্ট থেকে আগামী ২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ পর্যন্ত ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তা এবং পালেম্বাংয়ে অনুষ্ঠিত হবে এশিয়ান গেমস।

একাদশ বারের মতো বাংলাদেশও অংশ নিচ্ছে এই প্রতিযোগিতায় (১৯৭৮ আসর থেকে)। এবার তারা অংশ নেবে ১৪ ডিসিপ্লিনে (৮৬ পুরুষ ও ৩১ মহিলা এ্যাথলেট)।

পুরুষ ও মহিলা দুই বিভাগেরই দল থাকছে আরচারি, এ্যাথলেটিক্স, গলফ, কাবাডি, শূটিং, সাঁতার ও কুস্তিতে। ফুটবল, বাস্কেটবল, বিচ ভলিবল, ব্রিজ, হকি ও রোইংয়ে শুধু পুরুষ দল খেলবে। আর ভারোত্তোলনে লড়বে মহিলা দল।

গেমসে অংশ নিলেও পদকের প্রত্যাশা করছে না বাংলাদেশ। তবে শুটিং, আরচারি এবং কাবাডিতে ভাল ফল করার প্রত্যাশা করছে বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশন (বিওএ)।

এবারের এশিয়াডে ক্রিকেট নেই। শূটিং, কাবাডি ও আরচারি ঘিরেই তাই প্রত্যাশা। বিওএ’র মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা বুধবার (৮আগস্ট) বিওএর অডিটোরিয়াম অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই তিন ডিসিপ্লিন নিয়েই শোনান আশার কথা, ‘এই ইভেন্টগুলোতে আমরা ভাল করতে চাই। আর এখানে এ্যাথলেটরা ভাল পারফর্ম করবে বলে আশা করছি। এমনিতে এশিয়ান গেমসে শক্তিশালী দেশগুলো অংশ নেয়, সেখানে আমাদের মতো দেশের পদক পাওয়া কঠিনই।’

সর্বশেষ দুটি আসরে ক্রিকেট ও কাবাডিতে পদক জিতেছিল বাংলাদেশ। ২০১০ সালে গুয়াংজুতে পুরুষ দল স্বর্ণপদক ও মহিলা দল রৌপ্যপদক জিতেছিল। সেবার মহিলা কাবাডি দলের অর্জন ছিল তাম্রপদক। ২০১৪ আসরে মহিলা দল রৌপ্য ও পুরুষ দল তাম্র পদক জেতে। 

পুরুষ কাবাডি দল ২০১০ ও ২০১৪ সালে কিছুই অর্জন করতে পারেনি। এবার তাদের লক্ষ্য তাম্রপদক জেতা। মহিলা দলের কোচ ও জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার প্রাপ্ত ক্রীড়াবিদ আব্দুল জলিল গত দুই আসরের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে আশাবাদী।

এবারের আসরে বাংলাদেশ দলের সেফ দ্য মিশনের দায়িত্ব পালন করবেন বাংলাদেশ ভারোত্তোলন ফেডারেশনের সাবেক সভাপতি এবং বিজিবির সাবেক মহাপরিচালক লেঃ জেঃ আবুল হোসেন, এনডিসি, পিএসসি (এলপিআর)। ডেপুটি সেফ দ্য মিশন থাকবেন বিওএর সদস্য লেঃ কমান্ডার একে সরকার (অব)।

Print Friendly, PDF & Email