কন্যা হারানোর যন্ত্রণায় পুড়ছেন পাকিস্তানি ক্রিকেটার

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কবিশ্বকাপের আগে এমন খবর হয়তো শুনতে চাননি আসিফ আলী। অসুস্থ কন্যাকে যুক্তরাষ্ট্রের এক হাসপাতালে ভর্তি করে দেশের দায়িত্ব পালন করতে ছুটে এসেছিলেন ইংল্যান্ডে। পাঁচ ম্যাচের সিরিজ খেলার জন্য। সেখানেই শুনলেন দুঃসংবাদটা। মেয়ে আর বেঁচে নেই তাঁর।

বেশ কিছুদিন ধরেই ক্যানসারের সঙ্গে লড়ছিল আসিফের দুই বছরের ফুটফুটে কন্যাসন্তান, নূর ফাতিমা। চতুর্থ ধাপের ক্যানসার, মৃত্যুটা অবধারিতই ছিল। তারপরেও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলেন আসিফরা। শেষ চেষ্টা হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া হয়েছিল শিশুটিকে। কিন্তু লাভ হলো না। বাবা-মাকে কাঁদিয়ে চলে গেছে সে। ইংল্যান্ড থেকে আসিফ যুক্তরাষ্ট্রে গেছেন মেয়ের মুখটি শেষবারের মতো দেখার জন্য।

বিশ্বকাপের জন্য পাকিস্তানের প্রাথমিক স্কোয়াডে জায়গা পাননি, বিশ্বকাপের আগে ইংল্যান্ডের সঙ্গে পাঁচ ম্যাচের সিরিজটাকে আসিফ বেছে নিয়েছিলেন নিজেকে প্রমাণ করার মঞ্চ হিসেবে। সে লক্ষ্যে এগিয়েও যাচ্ছিলেন বেশ। সিরিজে পাকিস্তান প্রচণ্ড বাজে খেলেছে, ৪-০ ব্যবধানে হেরেছে, নিজেকে কিছুটা চিনিয়েছেন।

তৃতীয় ওয়ানডেতে ক্যারিয়ার সর্বোচ্চ ৫২ রান করেছিলেন। কিন্তু মেয়ে হারানোর বেদনায় ছাপিয়ে গেছে তাঁর জীবনের সবকিছুই। ক্যারিয়ারে এখনো পর্যন্ত ১৬ ওয়ানডে খেলে ৩১.০৯ গড়ে ৩৪২ রান করেছেন তিনি।

সবশেষ পিএসএলের সময় মেয়ের অসুস্থতার কথা জানতে পারেন আসিফ। আসিফের মেয়ের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছে আসিফের ফ্র্যাঞ্চাইজি ইসলামাবাদ ইউনাইটেড।

Print Friendly, PDF & Email