কাঁঠাল খাবেন কেন?

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কগ্রীষ্মের রসালো ফল কাঁঠাল চলে এসেছে বাজারে। খেতে সুস্বাদু কাঁঠাল পুষ্টিগুণের দিক থেকেও অনন্য। প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন, মিনারেল, কার্বোহাইড্রেট ও প্রোটিন পাওয়া যায় কাঁঠাল থেকে। ফ্যাট ও ফাইবার সমৃদ্ধ ফলটি শরীরের জন্য যেমন উপকারী, তেমনি এর বিচিতেও রয়েছে অনেক গুণ।

  • কাঁঠালে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকে যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।
  • কাঁঠালে আছে প্রচুর কার্বোহাইড্রেট ও ক্যালোরি। ফলে কাঁঠাল খেলে তাৎক্ষণিক পাবেন শক্তি। এতে কোলেস্টেরল না থাকায় শরীরের জন্য নিরাপদ।
  • অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও ফ্ল্যাভোনয়েড থাকায় কাঁঠাল ক্যানসার প্রতিরোধ করতে পারে। এতে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট শরীরে ফ্রি রেডিক্যাল প্রতিরোধ করে, যা ক্যানসার সৃষ্টির জন্য দায়ী।
  • কলা ও আমের তুলনায় নিয়াসিন ও থায়ামিন বেশি থাকে কাঁঠালে। তাই এটি অ্যাথলেটদের জন্য একটি দারুণ এনার্জি ফুড। এটি ক্লান্তি দূর করে, পেশি সবল করে ও মস্তিষ্ক সতেজ রাখে।
  • মলাশয় ও ফুসফুস ক্যানসার রোধে ভূমিকা রাখে কাঁঠাল। মলাশয় থেকে টক্সিন বের করে দিয়ে ক্যানসার হওয়া রোধ করে।
  • কাঁঠালে পটাশিয়াম থাকে, যা শরীরে সোডিয়াম লেভেল ঠিক রাখে। এতে করে শরীরে ইলেকট্রোলাইটের ভারসাম্য রক্ষা হয়।
  • উচ্চ রক্তচাপ, স্ট্রোক, হার্ট অ্যাটাক প্রতিরোধ করে কাঁঠাল।
  • প্রচুর আঁশ থাকে কাঁঠালে, তাই হজম শক্তি বাড়ায় ও কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। আলসারসহ হজমের অন্য সব রোগ সারিয়ে তোলে।
  • কাঁঠালে প্রচুর ভিটামিন এ থাকে, যা দৃষ্টিশক্তির জন্য ভালো। এই ফল খেলে চোখের ছানি পড়া, রাতকানা রোগ ও চোখের সমস্যা থেকে দূরে থাকবেন আপনি।
  • ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেশিয়াম থাকে কাঁঠালে। তাই এটি হাড় মজবুত রাখে। অস্টিওপোরসিস রোগ প্রতিরোধ করে।
  • কাঁঠাল আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াবে।  
  • থাইরয়েড হরমোনের ভারসাম্য রক্ষার জন্য কপার খুব গুরুত্বপূর্ণ। কাঁঠালে থাকা কপার তাই  থাইরয়েড গ্রন্থিকে ভালো রাখে।
  • কাঁঠালের বিচিতেও রয়েছে প্রোটিন। ভর্তাসহ নানা পদের খাবার তৈরি করা হয় এটি দিয়ে। কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধ করতে কাঁঠালের বিচি খেতে পারেন। এটি শরীরের রক্ত সরবরাহ বাড়ায়। ফলে ভালো থাকে ত্বক ও চুল।
Print Friendly, PDF & Email