টি-টোয়েন্টিতে ফেরার ইচ্ছা আর নেই : মাশরাফি

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক : টি-টোয়েন্টি থেকে তার অবসর মেনে নিতে পারছেন না কেউ। ভক্তরা মানববন্ধন করছেন। আন্দোলন করছেন। আলোর মিছিল করছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভক্তদের আকুতি ফুটে উঠছে। সবারই দাবি টি-টোয়েন্টিতে ফিরিয়ে আনা হোক মাশরাফিকে। অন্তত নিজের মাটিতে আরেকটা ম্যাচ খেলে হলেও অবসরের সিদ্ধান্তটা নিক তিনি! আবার বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও বলছেন, অধিনায়কত্ব ছেড়েছেন মাশরাফি, টি-টোয়েন্টি নয়।

একদিকে বিসিবি, অন্যদিকে বিশাল সমর্থকের চাপ। মাশরাফি কি তাহলে সিদ্ধান্ত বদলাবেন? বলবেন, সবার কথা চিন্তা করে আবার ফিরে আসলাম? না, মাশরাফি তেমন নন। মাশরাফি অন্তত পাকিস্তানের শহিদ আফ্রিদি নন, কয়েকবার অবসরের ঘোষণা দিয়ে আবার ফিরে আসবেন। তিনি যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, সেটা আর পাল্টানোর সুযোগ নেই। সে কথা এবার নিজ মুখেই জানালেন।

দেশের শীর্ষস্থানীয় একটি পত্রিকাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে মাশরাফি বলে দিয়েছেন, টি-টোয়েন্টিতে ফেরার ইচ্ছা আর তার নেই। তিনি আর ফিরবেন না। শুধু ওয়ানডে ক্রিকেটটা চালিয়ে যেতে চান, যতদিন ইচ্ছা পারা যায়।

সাক্ষাৎকারে মাশরাফিকে প্রশ্ন করা হলো, ‘টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট থেকে আপনার অবসর মানতে পারছে না অনেকেই। বোর্ড সভাপতিও বলেছেন, আপনি নাকি ‍শুধু অধিনায়কত্ব ছেড়েছেন। আপনার দিক থেকে সিদ্ধান্ত বদলানোর কোনো সম্ভাবনা কি আছে?’

মাশরাফির জবাব, ‘না। আমি সিদ্ধান্ত নিই দ্রুত, হঠাৎ। আমার জীবনের সব সিদ্ধান্তই আমি হঠাৎ করে নিয়েছি। অনেকে, এমনকি আমার বাসার মানুষও ভাবে যে, এসব সিদ্ধান্তের পেছনে আবেগ কাজ করেছে। খেলাধুলায় আবেগ থাকবেই। তবে আমার জায়গায় আমি অবিচল। একটা ব্যাপারই খারাপ লাগছে, মানুষজন যেটা চাচ্ছিল, বা আমিও হয়তো ভেবেছিলাম সবাইকে আগে থেকে জানিয়ে অবসর নেবো, সেটা কেন বলিনি তা বলতে পারিনি, সেগুলো বিস্তারিত না বলাই ভালো। যেহেতু সিদ্ধান্ত নিয়েই ফেলেছি, মানুষের কাছে দুঃখ প্রকাশ করা ছাড়া আর কিছুর সুযোগ নেই। আমার আর টি-টোয়েন্টিতে ফেরার ইচ্ছে নেই। খুব দ্রুত সিদ্ধান্ত নিলে আমার কাছে মনে হয়, এটাই সঠিক সিদ্ধান্ত।’

প্রশ্ন করা হলো, ‘অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়ে তাহলে কোনো আফসোসও নেই? আপনার অগনিত ভক্ত-সমর্থকের কথা চিন্তা করে সিদ্ধান্তটা কি দেশের মাটিতে হওয়া কোনো ম্যাচে নেয়া যেতো না?’

মাশরাফি বলেন, ‘এ নিয়ে বিস্তারিত কিছুতে আর যেতে চাচ্ছি না। তবে মানুষের যেটা চাওয়া ছিল, সেটা পূরণ করতে না পারায় একটা দুঃখ আমারও আছে। ১৫-১৬ বছর ধরে খেলছি। আমার বিশ্বাস এই ১৫-১৬ বছর ধরে খেলতে পারার পেছনে সাধারণ মানুষের ভালোবাসা আমার বিরাট একটা শক্তি। …. আমারও ইচ্ছা ছিল সবাইকে জানিয়ে সিদ্ধান্ত নিই; কিন্তু এখন দুঃখ প্রকাশ করাছাড়া আর কিছুই করা নেই। তবে ওয়ানডে তো এখনও খেলছি। চেষ্টা করবো সেখান থেকে সবাইকে জানিয়ে ভালোভাবে বিদায় নেয়ার।’

Print Friendly, PDF & Email