দারুণ শুরুর পরও খুলনার হার

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কবাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসরে খুলনা টাইটানসের শুরুটা হলো হারে। ১৭০ রানের লক্ষ্য পেয়ে দারুণ শুরু হয়েছিল তাদের। কিন্তু ডেথ ওভারে ব্যাটিং ব্যর্থতায় গতবারের চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্সের কাছে ৮ রানে হেরেছে মাহমুদউল্লাহরা। চিটাগং ভাইকিংসের কাছে হেরে শুরু করা রংপুর দ্বিতীয় ম্যাচে পেল জয়ের দেখা।

মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৩ উইকেটে ১৬৯ রান করে রংপুর। খুলনা ৫ উইকেটে থামে ১৬১ রানে।

দুই ওপেনারের পাল্টা জবাবে রবিবার জমে উঠেছিল বিকেলের ম্যাচ। তবে পল স্টারলিংকে ছাপিয়ে শেষ হাসি হাসলেন রাইলি রোসো। শেষ দিকে তার দারুণ ব্যাটিংয়ে সাফল্য পেল রংপুর।

রাইলি রোসো টপ অর্ডারে উপযুক্ত সঙ্গ পাননি বলে রানের চাকা সচল ছিল না রংপুরের ইনিংসের শুরুতে। কিন্তু রবি বোপারাকে পেতেই জ্বলে ওঠেন দক্ষিণ আফ্রিকার ওপেনার। ১০৪ রানের জুটি গড়েন দুজনে। শেষ ৫ ওভারে ৬৭ রান জমা করেন স্কোরবোর্ডে।

রোসোর ৭৬ রানের জবাব ভালোভাবে দেন স্টারলিং। জুনায়েদ সিদ্দিককে নিয়ে শুরু থেকে রংপুর বোলারদের ওপর চড়াও হন খুলনার এই ওপেনার। আইরিশ ব্যাটসম্যানের আগুন ঝরা ব্যাটিংয়ে পাত্তা পাননি মাশরাফি মুর্তজার বোলিং আক্রমণভাগ। ১১.১ ওভারে ৯০ রানের এই জুটি ভাঙেন বেনি হাওয়েল। জুনায়েদ ৩৩ রানে বিদায় নেন। ঘুরে যায় ম্যাচের মোড়।

পরের টানা দুই ওভার আরও দুটি উইকেট হারায় খুলনা। ৩৮ বলে হাফসেঞ্চুরি করা স্টারলিং আউট হন ৬১ রান করে। ৮ চার ও ১ ছয়ে সাজানো ছিল তার ৪৬ বলের ইনিংস। মাশরাফির কাছে বোল্ড হন স্টারলিং।

১০৮ রানে ৩ উইকেট হারানো খুলনাকে এগিয়ে নিতে থাকেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ ও আরিফুল হক। ২.১ ওভার বাকি থাকতে ৩২ রানের এই জুটি ভেঙে ম্যাচে উত্তেজনা ফেরান ফরহাদ রেজা। মাহমুদউল্লাহর (২৪) দারুণ ক্যাচ ধরে ব্রেকথ্রু আনেন ৪ ওভারে ৩৫ রান দিয়ে ১ উইকেট নেওয়া মাশরাফি।

পরের ওভারে আরিফুল ১২ রানে শফিউল ইসলামের শিকার হন। এই ধাক্কা আর কাটিয়ে উঠতে পারেনি খুলনা। শেষ ওভারে ২০ রান দরকার ছিল, ক্রিজে ছিলেন কার্লোস ব্র্যাথওয়েট ও জহুরুল ইসলাম। ফরহাদের ওই ওভারে আর পেরে ওঠেনি তারা প্রয়োজনীয় রান করতে। ১১ রান আসে শেষ ওভারে।

Print Friendly, PDF & Email