দ্বিতীয় রাউন্ডে ফ্রান্স, বিশ্বকাপ থেকে পেরু’র বিদায়

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কবল পায়ে থাকবে, স্কিল মুগ্ধ করবে, দেখার মতো কিছু আক্রমণও হবে। কিন্তু কেন যেন কাঙ্ক্ষিত গোল পাবে না! লাতিন আমেরিকার দল হিসেবে পেরুর মধ্যেও এ বৈশিষ্ট্য দেখা যাবে না, তা কী করে হয়!

পুরো ম্যাচে কী দারুণ খেলল, অথচ ম্যাচটা হেরে মাঠ ছাড়তে হলো পেরুকে । ইয়েকাতেরিনবুর্গে ফ্রান্সের কাছে ১-০ গোলে হেরে গ্রুপপর্ব থেকেই পেরুর বিদায় নিশ্চিত হলো।

আর ফ্রান্স উঠে গেল দ্বিতীয় রাউন্ডে। ৩৬ বছর পর বিশ্বকাপে প্রত্যাবর্তন গ্রুপ পর্বে শেষ হলো পেরুর যাত্রা্।

১৯৭৮ বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার কাছে হেরেছিল ফ্রান্স। এরপর কোনো বিশ্বকাপেই লাতিন আমেরিকার কোনো দলের কাছে তারা হারেনি। পেরুকে হারিয়ে রেকর্ডটা অক্ষতই রাখল ফ্রান্স।

প্রথম ৩০ মিনিটে পেরু যেভাবে খেলছিল, ফ্রান্সকেই বরং নড়বড়ে মনে হচ্ছিল। তবু ফেবারিট তকমাধারীদের সঙ্গে যে একটা সূক্ষ্ম পার্থক্য থাকেই, সেটিই ৩৪ মিনিটে বুঝিয়ে দিলেন কিলিয়ান এমবাপ্পে।

আঁতোয়ান গ্রিজমানের থ্রু বলে অলিভিয়ের জিরুর জোরালো শট। পেরুর ডিফেন্ডার রামোস ব্লক করলেও শেষরক্ষা হয়নি। বল পায়ে আসতেই এমবাপ্পের দারুণ ফিনিশিং।

ফ্রান্সের হয়ে সবচেয়ে কম বয়সে বিশ্বকাপে গোল করার রেকর্ড গড়লেন এমবাপ্পে। এই গোল আর শোধ করতে পারেনি পেরু।

Print Friendly, PDF & Email