নিউজিল্যান্ডের হৃদয় ভেঙে তাদেরই ‘বর্ষসেরা নাগরিক’ হবেন স্টোকস!

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কবিশ্বকাপ ফাইনালের পর কথাটা চাউর হয়েছে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ফাইনালে ইংল্যান্ডকে জেতালেন কি না নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটার! আর নিউজিল্যান্ডও এক কাঠি সরেস। ইংল্যান্ডের যে ক্রিকেটার তাঁদের হৃদয় ভাঙায় সবচেয়ে বেশি অবদান রাখলেন, সেই বেন স্টোকসকেই কি না ‘বর্ষসেরা নাগরিক’–এর পুরষ্কারের জন্য মনোনীত করেছে!

দম আটকানো সে ফাইনালের রেশ এখনো কাটেনি। নির্ধারিত ১০০ ওভারের খেলায় টাই, তারপর সুপার ওভারেও টাই; শেষ পর্যন্ত ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ জিতেছে বাউন্ডারি নিয়মে। আর দলটিকে এ পর্যন্ত টেনে এনেছিলেন বেন স্টোকস অপরাজিত ৮৪ রানের ইনিংস খেলে। এ ছাড়া গোটা বিশ্বকাপে ৬৬.৪২ গড়ে ৪৬৫ রানের পাশাপাশি ৭ উইকেটও নিয়েছেন নিউজিল্যান্ডে জন্ম নেওয়া ইংলিশ এ অলরাউন্ডার। এমন দুর্দান্ত পারফর্ম করায় স্টোকসকে ‘নিউজিল্যান্ডের বর্ষসেরা নাগরিক’ হিসেবে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে, জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম নিউজিল্যান্ড হেরাল্ড।

স্টোকসের সঙ্গে মনোনয়ন পেয়েছেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন, টিভি উপস্থাপক সাইমন বার্নেট, সাবেক রাগবি তারকা মানু ভাতুভেই এবং ক্রাইস্টচার্চ মসজিদে ভয়াবহ সেই হামলায় প্রতিরোধ গড়ে নিউজিল্যান্ডের ‘জাতীয় বীর’ বনে যাওয়া আফগান অভিবাসী আবদুল আজিজ।

স্টোকসকে নিউজিল্যান্ডের অনেকেই মনোনয়ন দেওয়ার কথা বলেছে, জানিয়েছেন বর্ষসেরা নাগরিক বেছে নেওয়ার প্রধান বিচারক ক্যামেরন বেনেট, ‘সে হয়তো ব্ল্যাক ক্যাপসদের প্রতিনিধিত্ব করে না কিন্তু জন্মেছে ক্রাইস্টচার্চে, যেখানে তার বাবা-মা বসবাস করছে। আর পারিবারিক শেকড়ও মাউরি (নিউজিল্যান্ডের আদিবাসী)। তাই অনেক কিউই মনে করে, আমরা তাঁকে এখনো নিজেদের মনে করতে পারি।’

আগামী ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হবে। ডিসেম্বর প্রকাশ করা হবে চূড়ান্ত ১০ মনোনয়ন প্রাপ্তের সংক্ষিপ্ত তালিকা। বর্ষসেরার পুরস্কার দেওয়া হবে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারিতে।

বেন স্টোকসের জন্ম আর শৈশবের পুরোটাই কেটেছে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে। তাঁর বাবা জেরার্ড স্টোকস দেশটির খ্যাতনামা রাগবি খেলোয়াড় ও কোচ। নানা জায়গায় কোচিং করিয়ে ডাক পান ইংল্যান্ডের ওয়ার্কিংটন টাউন রাগবি লিগ ক্লাবের কোচ হতে। সে ডাকে সাড়া দিয়ে ইংল্যান্ডে পাড়ি জমান জেরার্ড, সঙ্গে পুরো পরিবার। ফলাফল হিসেবে নিউজিল্যান্ডের বেন স্টোকস হয়ে যান ইংল্যান্ডের। ১৬ বছর হলো ইংল্যান্ডে বসবাস করছেন স্টোকস। তাঁর বাবা-মা ২০১৩ সাল থেকে বসবাস করছেন নিউজিল্যান্ডে।

Print Friendly, PDF & Email