ফাইনালের স্বপ্ন ধরে রাখলো তামিমের পেশোয়ার

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক : শ্রীলঙ্কা থেকে দেশে না ফিরে পিএসএলের এলিমিনেটর রাউন্ডের ম্যাচ খেলতে সরাসরি পাকিস্তানে যান টাইগার দুই তারকা তামিম ও মাহমুদউল্লাহ। পেশোয়ারের হয়ে মাঠে নামেন তামিম আর কোয়েটার মাহমুদউল্লাহ। মাঠের লড়াইয়ে পেশোয়ারের কাছে হেরে বিদায় নিয়েছে কোয়েটা গ্লাডিয়েটরস। শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ১ রানের জয়ে ফাইনালের স্বপ্ন ধরে রেখেছে তামিমের পেশোয়ার। দ্বিতীয় এলিমিনেটর ম্যাচে আজ করাচির বিপক্ষে মাঠে নামবে দলটি।

পাকিস্তানের লাহোরে গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বিদায় নেন পেশোয়ারের ওপেনার কামরান আকমল। ১ রান করে সাজঘরে ফিরে যান আন্দ্রে ফ্লেচারও। তৃতীয় উইকেটে মোহাম্মদ হাফিজকে সঙ্গে নিয়ে ৪৪ রানের জুটি গড়েন তামিম। হাফিজ ১৪ বলে ২৫ রান করে সাজঘরে ফেরেন।

এরপর বেশি সময় উইকেটে থাকতে পারেননি তামিমও। ২৭ রান করে মোহাম্মদ নওয়াজের বলে ক্যাচ দিয়ে আউট হন। তামিমের বিদায়ের পর থেকে আসা যাওয়া মিছিলে যোগ দেন পেশোয়ারের ব্যাটসম্যানরা। তবে এর মধ্যে লিয়াম ডসন ৩৫ বলে ৬২ রানের এক ঝড়ো ইনিংস খেললে ১৫৭ রানের সংগ্রহ পায় পেশোয়ার। ১৬ রানে ৪ উইকেট নিয়ে কোয়েটার সেরা বোলার রাহাত আলী। মাহমুদউল্লাহ ২ ওভারে ২০ রানে নিয়েছেন একটি উইকেট।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বিদায় নেন কোয়েটার দুই ওপেনার। তবে তৃতীয় উইকেটে ৬৩ রানের জুটি গড়েন মোহাম্মদ নওয়াজ ও সরফররাজ। তবে এই দুইজনের বিদায়ের পর থেকে আর কেউ দাঁড়াতে পারেনি। মাহমুদউল্লাহ আউট হন ১৯ রানে। শেষ ওভারে জয়ের জন্য কোয়েটার প্রয়োজন ছিল ২৫ রান। লিয়াম দউসনের ওভারের প্রথম বলে চার ও দ্বিতীয় বলে ছয় মেরে ম্যাচ জমিয়ে তুলেন আনোয়ার আলী।

তৃতীয় বলে কোন রান না নিতে পারলেও চতুর্থ ও পঞ্চম বলে পর পর দুটি ছক্কায় দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখান তিনি। শেষ বলে জয়ের জন্য ৩ রান দরকার ছিল দলটির। তবে এক রানের পর দ্বিতীয় রান নেওয়ার সময় আউট হন মির হামজা। ফলে হারের স্বাদ নিয়ে ফিরতে কোয়েটাকে। আর জয় দিয়ে ফাইনালের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখে পেশোয়ার।

Print Friendly, PDF & Email