ফ্রাঙ্কফুটের কাছে হেরে জার্মান কাপের শিরোপা বঞ্চিত বায়ার্ন

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কপুরো ম্যাচে আধিপত্য বিস্তার করে খেলেছে বায়ার্ন মিউনিখ কিন্তু কাজের কাজ গোল বেশি দিয়েছে তুলনামূলক দুর্বল দল আইনট্রাখট ফ্রাঙ্কফুট। ফলে ভালো খেলেও গোল করতে ব্যর্থ হওয়ায় জার্মান কাপের শিরোপা জেতা হলো না বায়ার্নের। জার্মানির সেরা ক্লাবটিকে ৩-১ গোলে হারিয়ে ৩০ বছর পর জার্মান কাপের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করলো ফ্রাঙ্কফুট।

বার্লিনের অলিম্পিক স্টেডিয়ামে হওয়া এই ফাইনালে বায়ার্ন স্কোয়াডে ফেরেন বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা গোলরক্ষক ম্যানুয়েল নয়্যার। গত বছরের সেপ্টেম্বরের পর প্রথমবারের মতো মাঠে নামার সুযোগ ছিল এই জার্মান গোলরক্ষকের সামনে। তবে ইনজুরি থেকে ফিরেই তাকে মাঠে নামানোর ঝুঁকি নেননি বায়ার্ন কোচ। তার বদলে গত ৯ মাস ধরে বায়ার্নের গোলবার সামলানোর দায়িত্বে থাকা সভেন উলরিখের ব্যর্থতার সুযোগ কাজে লাগিয়েই বায়ার্নের জালে ৩ বার বল পাঠায় ফ্রাঙ্কফুট।

পুরো ম্যাচের সিংহভাগ সময় বল নিজেদের দখলেই রাখে শক্তিশালী বায়ার্ন। কিন্তু ফরোয়ার্ড লাইনের ব্যর্থতায় বেশ কয়েকটি জোরালো আক্রমণ করেও গোল পেতে ব্যর্থ হয় বুন্দেসলিগার চ্যাম্পিয়ন দলটি। অন্যদিকে ম্যাচের ১১তম মিনিটে প্রথম সুযোগেই দলকে এগিয়ে দেন ফ্রাঙ্কফুটের ক্রোয়েশিয়ান ফরোয়ার্ড আন্দ্রে রেবিচ। মাঝমাঠ থেকে হামেশ রদ্রিগেজের ভুলে বল পেয়ে ঠাণ্ডা মাথায় নয়্যারকে পরাস্ত করেন রেবিচ। এক গোলে পিছিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বায়ার্ন।

দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে সমতা আনতে খুব বেশি সময় নেননি বায়ার্নের পোলিশ স্ট্রাইকার রবার্তো লেভেন্ডভোস্কি। ম্যাচের ৫৩তম ডান দিক থেকে জশুয়া কিমিচের পাসে বল পেয়ে ডি বক্সে ডিফেন্ডারদের কোন সুযোগ না দিয়ে দারুণ ফিনিশিংয়ে ম্যাচে সমতা ফেরান তিনি। তবে বেশিক্ষণ সমতা থাকতে দেননি রেবিচ। ম্যাচের ৮০তম মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল করে আবার দলকে এগিয়ে দেন এই ক্রোয়েশিয়ান ফরোয়ার্ড। বায়ার্নের আক্রমণ রুখে দিয়ে করা পাল্টা আক্রমণ থেকে এই গোলটি করেন রেবিচ।

ম্যাচের শেষদিকে সমতা ফেরাতে মরিয়া বায়ার্ন একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে প্রতিপক্ষ শিবিরে। কিন্তু জালের ঠিকানা খুঁজে পায়নি কোন আক্রমণই। উল্টো ম্যাচ শেষের এক মিনিট আগে পাল্টা আক্রমণে ফ্রাঙ্কফুটের হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন সার্বিয়ান মিডফিল্ডার গাসিনোভিচ। গোলের দেখা পেতে মরিয়া হয়ে গোলরক্ষক উলরিখও আক্রমণে উঠে গেলে ফাঁকা বারে গোল দেন গাসিনোভিচ।

মজার ব্যাপার হচ্ছে, পরবর্তী মৌসুমে ফ্রাঙ্কফুটের কোচের অধীনেই খেলবে বায়ার্ন। আগামী মৌসুমে বায়ার্নের বর্তমান কোচ ইয়ুপ হেইঙ্কেসের স্থলাভিষিক্ত হবেন ফ্রাঙ্কফুটের কোচ নিকো কোভাচ।

Print Friendly, PDF & Email