ব্রাজিলিয়ান ক্লাব ফ্ল্যামেঙ্গোয় অগ্নিকাণ্ডে নিহত ১০

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কএমিলিয়ানো সালার মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে ফুটবল বিশ্বে। বিমান দুর্ঘটনায় মারা যাওয়া এই আর্জেন্টাইন খেলোয়াড়ের শোকের মধ্যেই আরেকটি বড় ধাক্কা। ব্রাজিলিয়ান ক্লাব ফ্ল্যামেঙ্গোর অনুশীলন ক্যাম্পে অগ্নিকাণ্ডে মারা গেছে ১০ জন। শুক্রবার স্থানীয় সময় ভোরে ঘটেছে মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনা।

ঠিক কী কারণে আগুন লেগেছে, তা নিশ্চিত করতে পারেনি স্থানীয় ফায়ার সার্ভিস। তবে ১০ জনের মৃত্যু নিশ্চিতের সঙ্গে আরও তিনজনের আহত ও একজনের আশঙ্কাজনক অবস্থার কথা জানিয়েছে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম। রিও ডি জেনিইরোর পশ্চিমাঞ্চলের ভারগেম গ্রান্দেতে অবস্থিত ফ্ল্যামেঙ্গোর অনুশীলন ক্যাম্পে ঘুমিয়ে থাকা কিশোররা এই অগ্নিকাণ্ডের শিকার হয়েছে।

আহতদের বারা দা তিজুকার লরেনকো জর্জ মিউনিসিপাল হাসপাতালে ভর্তি করার খবর জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের লেফট্যানেন্ট কর্ণেল দগলাস হেনাত। এই ট্র্যাজিডিতে বেঁচে যাওয়াদের মধ্য থেকে পরিচয় নিশ্চিত হয়েছে ১৪ বছর বয়সী কুয়া এমানোয়েল গোমেস নুইনেস এবং ১৫ বছর বয়সী ফ্রানসিস্কো ডিয়েগো বেনতো আলভেস ও জোনাথান ক্রুজ ভেনতুরার।

ব্রাজিলিয়ান সংবাদমাধ্যম ‘গ্লোবো টিভি’কে লেফট্যানেন্ট কর্ণেল দগলাস বলেছেন, ‘খেলোয়াড়রা যেখানে ঘুমায়, সেখানেই আগুন লেগেছিল। কতজন এই ঘটনার শিকার হয়েছে, সেটা আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি। বিষয়টি দেখছে সিভিল পুলিশ।’

দগলাস আরও জানিয়েছেন, তারা এখনও নিশ্চিত হতে পারেননি ঠিক কিভাবে আগুন লেগেছিল। তবে তিনি ধারণা করছেন, বিস্ফোরণের সময় ঘুমিয়ে থাকা খেলোয়াড়রাই মারা গিয়েছে। তার বক্তব্য, ‘হতে পারে মারা যাওয়া খেলোয়াড়রা ঘটনার সময় ‍ঘুমিয়ে ছিলেন। ওই সময় তারা বের হতে পারেনি।’

দুর্ঘটনার জায়গার পাশেই নির্মাণাধীন বিল্ডিংয়ে কাজ করা এক শ্রমিক ব্রাজিলের আরেক সংবাদমাধ্যম ‘স্পোর্তটিভি’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, স্থানীয় সময় ভোর ৫-১০ মিনিটে বিস্ফোরণের বিকট শব্দ শুনতে পান তিনি।

মর্মান্তিক এই ঘটনায় বেঁচে যাওয়া এক খেলোয়াড়ের বাবা সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমরা ছেলে ধোঁয়ার মধ্যেই জেগে ওঠে, এরপর ওর বন্ধুকে ডেকেই দৌড়ে বেড়িয়ে পড়ে। ওর সঙ্গে আমার সকাল বেলাতেই কথা হয়েছে। অন্য ছেলেদের প্রতি আমরা গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।’

ফ্ল্যামেঙ্গোর অনুশীলন ক্যাম্পের অগ্নিকাণ্ডে গভীর শোক জানিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি জিকো ও ফ্ল্যামেঙ্গোর সাবেক খেলোয়াড় ভিনিসিয়াস জুনিয়র, যিনি এখন খেলছেন রিয়াল মাদ্রিদের জার্সিতে। জিকো বলেছেন, ‘কী মর্মান্তিক ঘটনা ফ্ল্যামেঙ্গোতে। খবরটা শোনার পর কী ধাক্কাটাই না খেয়েছি। ঈশ্বর ভালো রাখুক, যারা তাদের সন্তান, নাতি, ভাই, ভাতিজা এবং আত্মীয়কে হারিয়েছে।’ ভিনিসিয়াস টুইটারে লিখেছেন, ‘সবাই তাদের জন্য প্রার্থনা করি। শক্তি দাও, শক্তি দাও, শক্তি দাও।’ 

Print Friendly, PDF & Email