ভারতকে হারিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়ন হলো মালদ্বীপ

স্পোর্টস লাইফ, প্রতিবেদক গ্রুপ পর্বে এই ভারতের কাছে ০-২ গোলে হেরেছিল মালদ্বীপ। যে কারণে সেমিফাইনালে খেলা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল তাদের। পরবর্তীতের টস ভাগে শেষ চারে নাম লেখায় পিটার সেগার্টের দল।

এরপর থেকে রীতিমতো রূপকথার চিত্রনাট্য দেখিয়েছে মালদ্বীপ। সেমিফাইনালে নেপালকে উড়িয়ে দেয়ার পর ফাইনালে ফেবারিট ভারতকে হারিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ইতিহাসে নিজেদের দ্বিতীয় শিরোপা জিতে নিয়েছে মালদ্বীপ।

শনিবার (১৫সেপ্টেম্বর) ২০১৮ রাতে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে নান্দনিক ফুটবল উপহার দিয়ে সর্বোচ্চ সাতবারের চ্যাম্পিয়ন ভারতকে ২-১ গোলে হারিয়েছে মালদ্বীপ।

এর ফলে ২০০৮ সালের পর অর্থাৎ নয় বছর পর আবারো দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পড়লো দ্বীপের মালভূমি খ্যাত দেশটি। এই জয়ে শুধু গ্রুপ পর্বে হারের প্রতিশোধই নয়, এর আগে দুইবার ফাইনালে হারের মধুর প্রতিশোধও নিয়েছেন আকরাম, ইব্রাহিমরা।

ফাইনাল ম্যাচটি দেখতে গ্যালারিতে হাজার কয়েক দর্শক জড়ো হয়েছিলেন। তবে গ্যালারীর উৎসবটা আরো বিশাল আকারে হতে পারতো।

১৯ মিনিটে সংঘবদ্ধ আক্রমণে এগিয়ে যায় মালদ্বীপ। ডানপ্রান্ত দিয়ে ভারতীয় অর্ধে ঢুকে পড়েন ফরোয়ার্ড হাসান নাইজ। এরপর তিনি বল বাড়ান ডি বক্সে। বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আগুয়ান ভারতীয় গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে জালে পাঠিয়ে উল্লাসে ফেটে পড়েন আরেক ফরোয়ার্ড ইব্রাহিম হুসাইন (১-০)।

পিছিয়ে পড়ার পরও প্রথম ৩০ মিনিটে সমতা ফেরানোর মতো তেমন কার্যকরী আক্রমণ শাণাতে পারেনি ভারত।

বিরতির পর শুরু থেকেই গোল পরিশোধে মরিয়া আক্রমণ শাণাতে থাকে ভারত। ৪৭ মিনিটে ভাল একটি সুযোগও আসে। কিন্তু ফারুক চৌধুরীর হেড বারপোস্ট উচিয়ে বাইরে যায়। ৫১ মিনিটে অনিরুদ্ধ থাপার ফ্রিকিকে মানবিরের হেড বাইরে গেলে সমতা ফেরানো হয়নি ভারতের।

উপুর্যপুরী আক্রমণ শাণানো ভারত ৬৬ মিনিটে পাল্টা আক্রমণে আরও এক গোল হজম করে। এই গোলেই তাদের হার নিশ্চিত হয়ে যায়। মাঝমাঠ থেকে হামজা মোহাম্মদ ভারতের তিনজন ফুটবলারের মাঝ দিয়ে অসাধারণ থ্রু দেন। এরপর বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ভারতের আগুয়ান গোলরক্ষককে বোকা বানিয়ে আলতো টোকায় জালে জড়ান ফরোয়ার্ড আলি ফাসির (২-০)।

ভারতীয় ডিফেন্ডার স্বার্থক প্রাণান্ত চেস্টা করেও বল ফেরাতে ব্যর্থ হন। ৮২ মিনিটে আরও একটি গোল প্রায় পেয়েই গিয়েছিল মালদ্বীপ। কিন্তু ইব্রাহিম ওয়াহিদের শট অল্পের জন্য সাইডপোস্ট ঘেষে বাইরে যায়।
নির্ধারিত ৯০ মিনিট শেষে অতিরিক্ত হিসেবে পাঁচ মিনিট যোগ করা হয়।

এই সময়ের প্রথম মিনিটেই দুর্দান্ত গোল করে ম্যাচ উপভোগ্য করে তোলে ভারত। নিখিল চন্দ্রশেখরের পাসে দারুণ প্লেসিং শটে গোল করেন বদলি ফরোয়ার্ড সুমিত পাসি (২-১)।

এরপর আর কোনো গোল না হলে ঢাকার মাঠে এবারের ২০১৮ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ের হাসিটা হাসলো মালদ্বীপ এর ফুটবলাররা। 

Print Friendly, PDF & Email