ভিসা রেডি, অর্থ নেই, তবে কি চিকিৎসার অভাবে ছোট্ট শিশুটি মারা যাবে?

স্পোর্টস লাইফ, প্রতিবেদক জাতীয় বয়সভিত্তিক ফুটবলে ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার হিসেবে খেলে একসময় আলো ছড়িয়েছিলেন মোজাফফর হোসেন বাবু। ক্লাব ফুটবল খেলতে গিয়ে লিগামেন্ট ছিঁড়ে ফুটবল ক্যারিয়ার মাত্র ২২ বছর বয়সেই অকালে শেষ না হলে হয়তো জাতীয় সিনিয়র দলের জার্সিতেও দেখা যেত বাবুকে। 

ফুটবলে ফেরার সেই সংগ্রামে হেরে গেছেন বাবু। এখন তিনি ব্যস্ত আরেকটি সংগ্রামে। নিজের একমাত্র ছেলে আহানাফ আলি তামজিদের প্রাণ বাঁচানোর সংগ্রামে। 

ফুটফুটে শিশুটির দিকে তাকালে যে কারও মায়া লাগতে বাধ্য। বয়স মাত্র ১ বছর ৩ মাস।

এই বয়সেই তামজিদ কিডনি রোগে আক্রান্ত। যেটি এখন ক্যান্সারে রূপ নিয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যালের চিকিৎসকরা।

ডাক্তাররা জানিয়েছেন শিশুটির অবস্থা খুবই সঙ্কটাপন্ন। বাঁচাতে হলে অবিলম্বে ভারতের চেন্নাইয়ের হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করাতে হবে।

আর সে লক্ষ্যে আহানাফের চিকিৎসার জন্য পাসপোর্ট ও ভিসা রেডি! এখন শুধু টাকার অপেক্ষায়। আহানাফের অবস্থা খুব একটা ভালো না। যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসার জন্য ভারতে নিয়ে যেতে হবে। আহানাফের বাবা বাবুর আর্থিক সামর্থ্য নেই। তাই সে হাত বাড়িয়েছে সমাজের সবার কাছে।

আপনাদের সামান্য একটু সাহায্যই বাচিঁয়ে দিতে পারে আহানাফের জীবন। তাই সময় কম। সবাই একটু হাত বাড়িয়ে দিন। 

যারা সাহায্য করতে চান তারা বিকাশ করতে পারেন এই নম্বরে-মোজাফফর হোসেন বাবু : ০১৮২৫৬৪৪৫৫০, টুটুল : ০১৭৮৪৬৩২৪২১।

এই রিপোর্ট লেখার সময় বাবু ফেসবুকের ম্যাসেনজারে শিশুটির ভিসার ছবিটা দিয়ে খেলেন, ভাই ওরা রিপোর্ট দেখে ভিসা দিয়েছে কিন্তু সব টাকা যোগার করতে এখনও পারিনি। 

বাবু জানান, ভারতে নিয়ে তামজিদের চিকিৎসা করাতে প্রায় ৬ লাখ টাকা দরকার। এই টাকা তার নেই। এজন্য সমাজের বিত্তবান মানুষদের কাছে সাহায্যের আবেদন করেছেন সন্তানকে বাঁচানোর জন্য। 

তাহলে কি মাত্র ৬লাখ টাকার অভাবে শিশুটি মারা যাবে? আমরা যদি ১০টাকা ২০টাকা করেও দি তাহলে ৬লাখ টাকা হতে কত সময় লাগে। শত অভাবের মাঝেও আল্লাহর কাছে প্রার্থনা বেঁচে থাকুক বাবার কোলে ছোট্ট আহানাফ।  

Print Friendly, PDF & Email