৩২৩ রানের লক্ষ্যও ভারতের কাছে কিছুই না!

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক৩২৩ রানের লক্ষ্যও ভারতের কাছে সামান্যই! না হলে কি আর এই রান তুলতে ভারতের প্রয়োজন হয় মাত্র ৪২.১ ওভার। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৩২২ রান তুলে দ্রুত শিখর ধাওয়ানকে তুলে নেওয়ার পর ম্যাচের খোঁজ যাঁরা রাখেননি, অবাক হবেন জেনে, ভারত সিরিজের প্রথম ওয়ানডে জিতেছে ৪৭ বল আর ৮ উইকেট হাতে রেখে।

ওপেনার রোহিত শর্মা ও অধিনায়ক বিরাট কোহলি দুজনের ব্যাটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বড় রানের বাধাটা অনায়াসে পার হয়েছে ভারত। ১১৭ বল খেলে ১৫২ রানে অপরাজিত ছিলেন রোহিত। আর ১০৭ বল খেলে কোহলির সংগ্রহ ১৪০। দুজনে মিলে ২৯২ রান করলে আর কী লাগে!

অথচ ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই শিখর ধাওয়ানকে ফিরিয়ে ভয়ই ধরিয়ে দিয়েছিল ক্যারিবীয়রা। ওশানি থমাসের বলে ধাওয়ান যখন বোল্ড হয়ে ফিরে যান, ভারতের স্কোরবোর্ডে সংগ্রহ মাত্র ১০। ওয়ান ডাউনে নেমে কোহলি ২৪৬ রানের বিশাল জুটি গড়লেন রোহিতের সঙ্গে। আর এতেই তৈরি হয়ে যায় জয়ের ভিত।

দলীয় ২৫৬ আর ব্যক্তিগত ১৪০ রানে কোহলি ফিরে গেলে বাকি পথটুকু আম্বাতি রাইডুকে নিয়ে পাড়ি দিয়েছেন রোহিত। ভারতীয় এই ওপেনারের ইনিংসে ১৫ চার ও আটটি ৬ আছে। ২৬ বল খেলে ২২ রানে অপরাজিত ছিলেন রাইডু।

কোহলিই পাল্টা আক্রমণে পথ দেখিয়েছেন। ২১টি চার ও ২ ছক্কার ইনিংসে ভারত অধিনায়ক ওয়ানডেতে পেয়ে গেলেন ৩৫ নম্বর সেঞ্চুরি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৬০টি সেঞ্চুরি হয়ে গেল কোহলির! কী অবিশ্বাস্য গতিতে এগোচ্ছেন!

এর আগে শুরুতে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শিমরন হেটমায়ারের সেঞ্চুরিতে ৮ উইকেটে ৩২২ রান তোলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। চন্দরপল হেমরাজের উইকেট দলীয় ১৯ রানের মাথায় হারালেও কাইরেন পাওয়েল ও শাই হোপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংস বেশ কিছুটা পথ এগিয়ে দিয়ে যান। ৬৫ রানের এই জুটিতে পাওয়েলের অবদান ৪১ আর হোপের ২১। দলীয় ৮৪ রানে ব্যক্তিগত ৫১ রান করে ফেরেন পাওয়েল।

এই ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়ে দলীয় সংগ্রহটাকে টেনে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্বটা অবশ্য পালন করতে পারেননি মারলন স্যামুয়েলস আর শাই হোপ। স্যামুয়েলস ফেরেন শূন্য রানে। ১১৪ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে বসা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পথ দেখান হেটমায়ার। মাত্র ৭৮ বলে ১০৬ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন তিনি। তাঁর ইনিংসে ছিল ৬ চার আর ৬ ছক্কা।

হেটমায়ার আজ এক রেকর্ডের মালিক হয়েছেন। সেটি ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে সবচেয়ে কম ইনিংস খেলে তিনটি সেঞ্চুরির। এর আগে এই রেকর্ড ছিল ভিভ রিচার্ডসের। ১৬ ইনিংস খেলে নিজের তৃতীয় সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন ক্যারিবীয় গ্রেট। হেটমায়ার পেয়েছেন ১৩ ইনিংস খেলেই।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংসের শেষটা আসে রোভমান পাওয়েল, জেসন হোল্ডার, দেবেন্দ্র বিশু আর কেমার রোচের ব্যাটে। পাওয়েল করেন ২৩ বলে ২২, হোল্ডার ৪২ বলে ৩৮। তবে বিশু আর রোচ সবচেয়ে বেশি চমকে দিয়েছেন ভারতীয় বোলারদের। শেষ উইকেট জুটিতে এই দুজন স্কোরবোর্ডে যোগ করেন ৪৪ রান। বিশু ২৬ বলে ২২ আর রোচ ২২ বলে ২৬ করে ক্যারিবীয় ইনিংস ৩২২-এ নিয়ে যান।

ভারতীয় বোলারদের জন্য আজকের দিনটা মোটেও ভালো যায়নি। প্রায় প্রত্যেকেই ছিলেন খরুচে। মোহাম্মদ শামি ৮১ রান দিয়ে নিয়েছেন ২ উইকেট। উমেশ যাদব ১০ ওভারে ৬৪ রান দিয়ে ছিলেন উইকেটশূন্য। খলিল আহমেদ নিয়েছেন ১ উইকেট। ভারতীয়দের মধ্যে সেরা ছিলেন যুজবেন্দ্র চাহাল। ১০ ওভারে ৪১ রানে দিয়ে তিনি নিয়েছেন ৩ উইকেট।

কিন্তু ভারতের ব্যাটিং তারকারা প্রত্যেকে একেকজন এত বড় মহিরুহ, এই রানটাও বানিয়ে ফেললেন মামুলি! 

Print Friendly, PDF & Email