সাক্ষী বদলে দিলেন ‘সুলতান’-এর কাহিনিও! ‘সুলতান-২’তে কী হবে?

স্পোর্টস লাইফডেস্ক : প্রথম ভারতীয় মহিলা হিসেবে অলিম্পিক্সের কুস্তিতে ব্রোঞ্জ পদক জিতলেন সাক্ষী মালিক। সাক্ষীর থেকে পদক জয়ের আশা কেউই করেননি। একজন ভারতীয় মহিলা কুস্তিতে পদক আনবেন? বাস্তব কেন, সিনেমার স্ক্রিপ্টেও এমনটা ভাবা যায় না।

সাক্ষীর সৌজন্যে আবারও এক ধাক্কায় ভারতে কুস্তি নিয়ে আগ্রহ অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। এদেশে অবশ্য কুস্তি নিয়ে কয়েকমাস আগেও তুমুল উন্মাদনা দেখা গিয়েছিল। তবে তা ‘সুলতান’-এর সৌজন্যে। ‘সুলতান’-এর কাহিনি কুস্তিকে ঘিরে আবর্তিত। নায়ক সুলতানও কুস্তিগির, নায়িকা আরফাও। বলা ভাল, আরফার মন জিততেই কুস্তিগির হওয়ার প্রতিজ্ঞা করেছিলেন সুলতান।

আর আরফার স্বপ্ন ছিল কুস্তিতে অলিম্পিক্সে দেশের জন্য পদক জেতা। তার জন্য প্রথমে সুলতানের প্রেম প্রত্যাখ্যানও করেছিল আরফা। কিন্তু ‘সুলতান’-এর নায়িকা আরফা শেষ পর্যন্ত একজন ভারতীয় নারী, ছবি বলিউডের এবং নায়ক সলমন। ভারতীয় মহিলা অলিম্পিক্সে গিয়ে কুস্তিতে পদক জিতে আসবেন, ছবির গল্প এই খাতে এগোলে দর্শক নাও ‘খেতে’ পারে। ফলে ‘সুলতান’-এর আরফা নিজের স্বপ্ন বিসর্জন দিয়ে সংসারী হয়ে যান, আর অনেক পরে কুস্তি শিখেও দেশ, বিদেশে টপাটপ পদক জিতে বিখ্যাত হন নায়ক সুলতান।

‘সুলতান’-এর নায়িকা আরফার মতো বাস্তবের সাক্ষী মালিকেরও ছোট থেকে স্বপ্ন ছিল অলিম্পিক্সে দেশের হয়ে পদক জেতা। অলিম্পিক্সে পদক জয়ের পরে নিজেই সেকথা জানিয়েছেন সাক্ষী। ‘সুলতান’-এর আরফা ছিলেন হরিয়ানার গ্রামের মেয়ে, সাক্ষী মালিকও তাই। সিনেমার আরফার মতো বাস্তবের সাক্ষীর কোনও প্রেমিক আছেন কি না, এখনও জানা যায়নি।

প্রেমিক থাকুন বা না থাকুন, ভাগ্যিস সিনেমার গল্পের মতো সাক্ষী নিজের স্বপ্নকে জলাঞ্জলি দেননি। তাহলে তো তাঁর নিজের মতো একশো তিরিশ কোটি ভারতবাসীরও স্বপ্নপূরণ হত না। সাক্ষী প্রমাণ করলেন, বাস্তবটা সিনেমার থেকেও কঠিন। আর সিনেমার গল্প তো বাস্তবের থেকেই অনুপ্রেরণা পায়। ‘সুলতান’-এর শেষে দেখা গিয়েছিল, স্বামীর হাত ধরে ফের কুস্তির রিংগ-এ ফিরেছেন আরফা।

‘সুলতান’-এর বিপুল সাফল্যের পরে ইতিমধ্যেই ‘সুলতান-২’ তৈরি করার সিদ্ধান্ত হয়ে গিয়েছে। বাস্তবের আরফা ওরফে সাক্ষীর এই কৃতিত্বের পরে কি ‘সুলতান-২’-এ একটু অন্যভাবে ভাবার সাহস দেখাবেন পরিচালক? অপেক্ষায় থাকল ভবিষ্যতের সাক্ষী মালিকরা।

Print Friendly, PDF & Email
শেয়ার