অলিম্পিকে প্রথম সমকামী ‘দম্পতির’ সোনা জয়!

স্পোর্টস লাইফডেস্ক : অলিম্পিকের ইতিহাসে ‘প্রথম নারী সমকামি দম্পতি’ হিসেবে তারা অংশ নিয়েছিলেন রিও অলিম্পিকে। এবং সেখান থেকে ইতিহাস গড়ে ফিরছেন যুক্তরাজ্যের দুই ফিল্ড হকি খেলোয়াড় কেট রিচার্ডসন ও তার সঙ্গিনী হেলেন। এই জুটি একই লিঙ্গের সমকামী জুটির অলিম্পিক পদক জয়ের রেকর্ড গড়েছেন। শুধু তাই না। তারা জিতেছেন সোনা। কেটের নেতৃত্বে বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ের এক নম্বর নেদারল্যান্ডসকে হারিয়েছেন তারা। এটা এই ইভেন্টে যুক্তরাজ্যের ইতিহাসের প্রথম সোনা জয়ও বটে।

২০০৮ সালে বেইজিং অলিম্পিক থেকে তাদের রোমান্স শুরু। কেট ২০০৩ থেকে অধিনায়ক। এরপর ২০১৩ সালে সেই প্রেম রূপ নেয় বিয়েতে। ওই বছরই ব্রিটেনে সমকামী বিয়ে বৈধতা পায়। এর আগে ২০১২ লন্ডন অলিম্পিকে তারা ব্রোঞ্জ পেলেও তখনো তো ‘বিবাহিত’ ছিলেন না। ভালোবাসার নজির গড়ে তারা প্রস্তুতি নেন রিও অলিম্পিকের জন্য। বিভিন্ন সূত্র থেকে খবর, রিও গেমসে আসা ৪৪ প্রকাশ্য সমকামী অ্যাথলেটের আটজনই নাকি যুক্তরাজ্যের। তবে নারী সমকামী দম্পতি এই দুজনই। যেন তারা এলেন দেখলেন আর জয় করলেন। গত দুই অলিম্পিকের চ্যম্পিয়ন নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে যুক্তরাজ্যের ফাইনাল ম্যাচটি ৩-৩ গোলে অমীমাংশিত ছিল।

এরপর পেনাল্টি শুটআউটে ম্যাচটি জিতে নতুন চ্যাম্পিয়ন হয় ব্রিটেন। ৩৬ বছরের কেট ও তার স্ত্রী ৩৪ বছরের হেলেনের আনন্দটা বুঝি সবার চেয়ে বেশি! ইতিহাসের মাঝে ইতিহাস গড়েছেন যে তারা! কেট বলেছন, “এটি সত্যিই খুব স্পেশাল। অলিম্পিক পদক জয় এমনিতেই স্পেশাল, তবে সেটা যদি হয় নিজের জীবনসঙ্গীর সাথে- তা হলে এর চাইতে আনন্দের আর কিছু হতে পারে না।” হেলেনের আনন্দও কম নয়। তিনি বলেছেন, “আমরা একসঙ্গে সোনা জিতেছি, লাউডস্পিকারে বাজতে থাকা আমাদের জাতীয় সংগীতের সাথে কণ্ঠ মিলিয়েছি- যা আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ ঘটনা। কেটের সঙ্গে খেলতে পেরে আমি গর্বিত।

আর ব্যক্তিগত জীবন? সেখানে কেমন আছেন তারা? মানুষই বা তাদের কীভাবে গ্রহণ করছেন। উত্তরে এই জুটি বলেছেন, সারা বিশ্বেই সমকামীরা সামাজিক এবং ধর্মীয় আক্রমণের শিকার। ব্রিটেনেও একসময় এই সমস্যা ছিল। তবে কালের পরিক্রমায় মানুষ এখন সমকামিতাকে স্বাভাবিকভাবেই নিচ্ছে। আপনি বিপরীত লিঙ্গের কারও সঙ্গে সম্পর্ক করবেন না সমলিঙ্গের সঙ্গে করবেন তা নিয়ে অন্য কারও মাথাব্যথা নেই। বিশ্বজুড়ে যারা এখনও সমকামীদের আক্রমণ করেন তারা এই জুটির কাছে শিক্ষা নিতে পারেন বলে মত দিয়েছেন কেট-হেলেন।

Print Friendly, PDF & Email
শেয়ার