অতিরিক্ত মেদের জারিজুরি শেষ জিরের জাদুতে!

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক : ঝোলে-ডালে-অম্বলে, সবেতেই সে আছে। কখনও পাঁচফোড়নে, কখনও তেজপাতার সঙ্গে ফোড়ন দিতে, কখন শুধুই বাটা, কখনও গুঁড়ো৷ সবেতেই জিরের স্বাদ না থাকলে গোটাটাই মাটি৷ কিন্তু শুধুই যে রান্নায় সুগন্ধের জন্য জিরে ব্যবহার হয়, তা কিন্তু নয়। স্বাস্থ্যের কথা ভেবেও আমরা রান্নায় জিরে দিই। স্পাইসি এই মশলা যে আপনার শরীর থেকে বাড়তি মেদ ঝরাতেও ওস্তাদ, সে খোঁজ কি রাখেন? হাতের কাছে ক্যালেন্ডার থাকলে, জাস্ট তারিখ দেখে নিন৷ আর জিরের হাত ধরে শুরু হোক ১৫ দিনে মেদ কমানোর প্রক্রিয়া৷

জিরে শুধু যে চর্বি বের করে দেয়, তা কিন্তু নয়। একই সঙ্গে অস্বাস্থ্যকর কোলেস্টেরলকে শরীর থেকে বের করে দেয়। ফলে, যারা ওজন কমানোর জন্য জিমে গিয়ে ঘাম ঝরাচ্ছেন, একবার ১৫ দিনের জন্য জিরের ওপর ভরসা রাখতে পারেন। নিরাশ হবেন না। গবেষকরা বলছেন, জিরের মধ্যে রয়েছে থাইমল ও অন্যান্য কিছু তেলের উপস্থিতি। যার কাজ হলো লালা নিঃসরণকারী গ্রন্থিকে উত্তেজিত করা। যার ফলে খাবার ভালো হজম হয়।

এ ছাড়াও জিরের গুণে পরিপাকতন্ত্র ভালো কাজ করে। গবেষকরা জানাচ্ছেন, হজমের গন্ডগোল হলে, জিরে দিয়ে চা খেয়ে দেখতে পারেন। উপকার পাবেন। এক গ্লাস জলে এক চামচ জিরে দিন। ভালো করে ফুটিয়ে নিন। জলের রং লালচে হয়ে এলে, গ্যাস বন্ধ করে, পাত্রটি চাপা দিয়ে রাখুন। একদম ঠান্ডা হওয়া অবধি অপেক্ষা করুন। এই জিরে চা দিনে তিন বার খেলে, হজমশক্তি বাড়বে। পেটে ব্যথা কমবে।

এক: একটা গেলাসে বড় চামচের দু-চামচ গোটা জিরে সারারাত ভিজিয়ে রাখুন। সকালে সেই জল গরম করে, না ছেঁকে চায়ের মতো খান। মুখে গোট জিরে পড়লে, ফেলবেন না। চায়ের মতো কয়েক দিন পান করুন, দেখবেন ওজন কমছে।

দুই: যদি দেখেন, উপরের দাওয়াই আপনার ক্ষেত্রে খুব ভালো কাজ করছে না, তা হলে দ্বিতীয় উপায়ের আশ্রয় নিন। খাবারে জিরের পরিমাণ বাড়িয়ে দিন। দইয়ের সঙ্গেও জিরে খেতে পারেন। ৫ গ্রাম টক দইতে এক চামচ জিরে গুঁড়ো মিশিয়ে নিয়মিত খান। ওজন নিশ্চিত ভাবেই কমবে।

তিন: কয়েক চামচ মধু ও তিন গ্রাম জিরে গুঁড়ো এক গ্লাস জলে ভালো করে মিশিয়ে নিন। নিয়মিত এই মিশ্রণটি খান। স্যুপ তৈরি করে, এক চামচ জিরাগুঁড়ো মিশিয়ে খেলেও ভালো কাজ দেবে।

চার: পাতিলেবু ও রসুনও ওজন ঝরাতে খুব ভালো দাওয়াই। গাজর ও অন্যান্য সবজি সেদ্ধ করে নিয়ে, রসুন কুচি ও লেবুর রস ঢেলে দিন। তাতে কিছুটা জিরার গুঁড়ো মেশান। রোজ রাতে খেয়ে, ম্যাজিক পরিবর্তন দেখুন। ১৫ দিনে পরেই বুঝতে পারবেন আপনার ওজন কমেছে।

Print Friendly, PDF & Email