অলিম্পিকে কাজাখস্তানের জোড়া সোনা!

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক : রিওর অলিম্পিকের ষষ্ঠ দিনটাকে কাজাখস্তান মনে রাখবে ভিন্নভাবে। এদিন তাদের একজন অ্যাথলেট ভারোত্তোলনে বিশ্ব রেকর্ড গড়ে সোনা জিতলেন। আরেক অ্যাথলেট তাদের ইতিহাসের প্রথম অলিম্পিক সোনা এনে দিলেন। জোড়া সাফল্যে উদ্ভাসিত দেশটি। ড্রাগ পাপে দুই বছর নিষেধাজ্ঞা কাটিয়েছেন ভারোত্তোলক নিজাত রাহিমভ। পুরুষদের ৭৭ কেজি ওজন শ্রেণিতে তিনি নতুন বিশ্ব রেকর্ড গড়ে সোনা জিতেছেন। আর পুরুষদের ২০০ মিটার ব্রেস্টস্ট্রোকের সোনা জেতা দিমিত্রি বালানদিনকে বলা হচ্ছে বিস্ময় বিজয়ী।

বালানদিন মোটেও ফেভারিট ছিলেন না। কিন্তু রিওর পুলের ফাইনালে তিনিই সেরা। ২০০ মিটার ব্রেস্টস্ট্রোক শেষ করেছেন ২ মিনিট ০৭.৪৬ সেকেন্ডে। আমেরিকান জশ প্রেনট বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ের ১ নম্বরে থেকে রিওতে এসেছিলেন। কিন্তু বালানদিনের পেছনে থেকে ২ মিনিট ০৭.৫৩ সেকেন্ডে রুপা জিতেছেন তিনি। আর রাশিয়ার আন্তন চুপকভ ২ মিনিট ০৭.৭০ সেকেন্ড জিতেছেন ব্রোঞ্জ।

সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৯৬ থেকে অলিম্পিকে অংশ নিচ্ছে কাজাখস্তান। কিন্তু এই প্রথম অলিম্পিক সাঁতারে সোনা জিতল তারা। কাজাখস্তানের নিজাত জন্মভূমি আজারবাইজানের হয়ে প্রতিদ্বন্দিতা করতেন। ২০১৩র জুন থেকে ২০১৫র জুন পর্যন্ত নিষিদ্ধ ছিলেন। ড্রাগ টেস্টে পজিটিভ হয়েছিলেন। পরে কাজাখস্তানের হয়েছেন। এবং এই দেশের হয়েই চীনের লিউ জিয়াওজুনকে হারিয়ে ভারোত্তোলনে সোনা জিতেছেন।

চাইনিজ সুপারস্টার লিউ ফেভারিট ছিলেন। তিনি ২০১২ লন্ডন অলিম্পিকে এই ইভেন্টে সোনা জিতেছিলেন। কিন্তু ২২ বছরের নিজাত কম যান না। নাটকীয়ভাবে ক্লিন অ্যান্ড জার্কে চার কেজির ব্যবধান গড়ে বিশ্ব রেকর্ড গড়ে ফেলেছেন। ২১৪ কেজির বিশ্ব রেকর্ড তার। সব মিলিয়ে তুলেছেন ৩৭৯ কেজি। ভেঙেছেন ১৫ বছরের পুরনো রেকর্ড। অথচ এই অলিম্পিকে নিজাতের হয়ত অংশ নেওয়াই হতো না। তার ওপর ডোপিংয়ের নানা অভিযোগ। আন্তর্জাতিক ভারোত্তোলন সংস্থা রাশিয়া ও বুলগেরিয়ার ভারোত্তোলকদের নিষিদ্ধ করেছে।

নিজাতকেও নিষিদ্ধ করতে চেয়েছিল রিওতে। কিন্তু এই কাজাখের ভাগ্য ভালো। আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির স্যাম্পল টেস্টিং ব্যবস্থা যথাযথ না থাকায় নিজাত বেঁচে যান। এবং বিশ্ব রেকর্ড গড়েই সবাইকে কাঁপিয়ে দিলেন। নিজাতের ইভেন্টে অবশ্য মিসরেরও একটি সাফল্য আছে। তাদের মোহাম্মদ মাহমুদ জিতেছেন ব্রোঞ্জ।

Print Friendly, PDF & Email