আপেলের খোসার যত গুণ

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কপুষ্টিবিদরা বলেন, প্রতিদিন একটা আপেল ডাক্তার থেকে দূরে রাখে। এই চমৎকার ফলটি পেটিনিন ফাইবারে সমৃদ্ধ এবং শর্করার পরিমাণ কম যা হৃদরোগের সমস্যা কমাতে এবং রক্তে চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। এতে প্রচুর গুরুত্বপূর্ণ ভিটামিন এবং খনিজ পদার্থ রয়েছে যা হাড়ের স্বাস্থ্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু আপনি কি জানেন, আপেলের খোসা আরও বেশি উপকারী?

আপেলের খোসায় আছে পর্যাপ্ত ফাইবার: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি বিভাগের (ইউএসডিএ) মতে, আপেলের বেশিরভাগ ফাইবার থাকে এর খোসাতেই। ফাইবার দীর্ঘ সময়ের জন্য পেট ভরা রাখতে সাহায্য করে। এছাড়াও ফাইবার হাড়, যকৃত সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। এটি হজমের শক্তি বাড়ায়।

ফুসফুস ভালো রাখে: আপেলের খোসায় রয়েছে কোয়ার্সিটিন নামক একটি শক্তিশালী যৌগ, যা অ্যান্টি-প্রদাহজনক বলে পরিচিত। এটি হার্ট এবং ফুসফুসের বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যা থেকে সুরক্ষা দেয়।

ওজন কমাতে সাহায্য করে: আপেলের খোসার ফাইবার দীর্ঘ সময়ের জন্য আপনার পেট ভর্তি রাখতে সাহায্য করে এবং আরও বেশি খাবার খাওয়া থেকে আটকায়। ফলে কম ক্যালোরি খাওয়া হয় এবং ওজনও নিয়ন্ত্রণে থাকে। এছাড়াও খোসাতে পলিফেনল রয়েছে যা কার্বোহাইড্রেট এবং চর্বি শোষণ করতে সাহায্য করে। আপেলের কম গ্লাইসেমিক সূচক (খোসাসহ) রক্তের শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রিত রাখতে পারে।

হৃদরোগ থেকে রক্ষা করে: বেশকিছু গবেষণায় দেখা গেছে যে আপেলের খোসার পলিফেনল রক্তচাপ এবং কোলেস্টেরল কমিয়ে দেয় এবং হৃদযন্ত্র সুস্থ রেখে শিরাগুলোড় স্থিতিস্থাপকতা উন্নত করতে সাহায্য করে।

এতে আছে অত্যাবশ্যক ভিটামিন: ভিটামিন এ, সি এবং কে রয়েছে আপেলের খোসাতে। এছাড়া এতে পটাসিয়াম, ফসফরাস এবং ক্যালসিয়ামের মতো অপরিহার্য খনিজ রয়েছে যা সামগ্রিক স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। এসব পুষ্টি মস্তিষ্ক, স্নায়ু, ত্বক এবং হাড় রক্ষা করতে সাহায্য করে।

Print Friendly, PDF & Email