আশরাফুলের হ্যাটট্রিক সেঞ্চুরিতেও দলের হার

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক : একের পর এক সেঞ্চুরি করে যাচ্ছেন মোহাম্মদ আশরাফুল। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে (ডিপিএল) টানা তিন ম্যাচে শতক হাঁকিয়ে গড়লেন রেকর্ড। কিন্তু দলের পরাজয়ে ম্লান তার অর্জন। তিন ম্যাচেই যে হারের স্বাদ পেল লিগে অবনমন ঠেকাতে ব্যর্থ কলাবাগান ক্রীড়া চক্র।

বিকেএসপিতে ওপেনার ওয়ালিউল করিমের ৭৯ ও আশরাফুলের অপরাজিত ইনিংসে (১০২) কলাবাগানের করা তিন উইকেটে ২৫২ রানের জবাবে ৩৪ বল ও ৬ উইকেট হাতে রেখে জয় তুলে নেয় ব্রাদার্স ইউনিয়ন। এবারের আসরে আশরাফুলের পঞ্চম সেঞ্চুরিটি বৃথাই গেল। মোহামেডানের বিপক্ষে রাউন্ড রবিন পর্বের শেষ ম্যাচ ও অগ্রণী ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের বিপক্ষে রেলিগেশন লিগের প্রথম ম্যাচেও দলের হার দেখতে হয় তাকে। 

১১৫ রান করে ব্রাদার্সের জয়ের নায়ক ওপেনার মিজানুর রহমান। অধিনায়ক অলক কাপালি ২৭ করে আউট হন। ইয়াসির আলী ৪৫ ও নাজমুস সাদাত ৩২ রানে অপরাজিত থাকেন।

রেলিগেশন লিগের দুই ম্যাচেই হারলো কলাবাগান। দলের দৈন্যদশার মাঝে উজ্জ্বল ছিলেন ৩৩ বছর বয়সী আশরাফুল। ঘরোয়া ক্রিকেটে ধারাবাহিক পারফরম্যান্সে নির্বাচকদেরকেও ভাবনায় ফেলে দিলেন নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরার পর জাতীয় দলে প্রত্যাবর্তনের অপেক্ষায় থাকা সাবেক অধিনায়ক।

রাউন্ড রবিন পর্ব শেষে শিরোপা লড়াইয়ে শীর্ষ ৬টি টিম খেলছে সুপার লিগ। সুপার সিক্সের দৌড়ে ছিটকে গেলেও ষষ্ঠ, সপ্তম ও অষ্টম স্থানধারীরা পরবর্তী সিজনে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। রেলিগেশনে চলে যায় তলানির তিনটি ক্লাব। যেখান থেকে সেরা দল ডিপিএলের নতুন মৌসুমের জন্য উত্তীর্ণ হবে।

প্রসঙ্গত, ১২ দলের প্রিমিয়ার লিগে বাকি দু’টি টিম আসে প্রথম বিভাগ থেকে। যেখানে নেমে গেছে আশরাফুলের কলাবাগান। তাদের সঙ্গী হবে ব্রাদার্স ও অগ্রণী ব্যাংকের মধ্যকার রেলিগেশন লিগের শেষ ম্যাচে (৪ এপ্রিল) হেরে যাওয়া দল।

Print Friendly, PDF & Email