ওয়ান্ডারার্সেই ডু প্লেসির শেষ হোম টেস্ট?

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কফাফ ডু প্লেসির বয়স হয়ে গেছে ৩৫। সাম্প্রতিক ফর্ম, বয়স আর প্রোটিয়া দলের পালা বদলে তাকে নিয়ে এখন একটা বিষয়ই চর্চিত হচ্ছে সবচেয়ে বেশি। হয়তো বিদায় বলে দিচ্ছেন তিনি! দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়ক ইঙ্গিত দিয়েছেন তেমন সম্ভাবনার। তবে সেটা হয়তো হতে পারে টেস্টে। ওয়ান্ডারার্সে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চতুর্থ টেস্টটাই হতে পারে ডু প্লেসির শেষ হোম টেস্ট!

ডু প্লেসির সাম্প্রতিক ফর্মই বলে দেয় কেন এমন ভাবনায় নিমজ্জিত তিনি। শেষ আট টেস্টের সাতটিতেই হেরেছে তার দল। এমনকি এক বছরেরও বেশি সময় ধরে নেই কোনও সেঞ্চুরি। অক্টোবরের পর শেষ ১২ ইনিংসে গড়ে তার সংগ্রহ ২১.২৫। আবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে শীতকালে খুব বেশি টেস্টও খেলবে না তারা। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে খেলবে দুটি টেস্ট। হয়তো এই টেস্ট সিরিজেই বেজে যেতে পারে বিদায়ের করুণ রাগিনী। ফাফ ডু প্লেসি তেমন ইঙ্গিত দিয়ে বলেছেন, ‘হ্যাঁ, অবশ্যই। এটাই সম্ভাবনা।’

ডু প্লেসি বিদায়ের ইঙ্গিত দিলেও এখনও দৃঢ় প্রতিজ্ঞ শেষ টেস্টে পালা বদলের মধ্যে দিয়ে যাওয়া দলটিকে এগিয়ে নিতে। একই সঙ্গে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পরেই বোঝা যাবে তার চূড়ান্ত পরিণতি, ‘‘আবেগের বশবর্তী হয়ে বা দল যে অবস্থায় আছে তার ভিত্তিতে আমি কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারি না। আমি শুধু শক্ত একজন নেতা হয়েই দিক নির্দেশনা দিতে চাই। এখন পর্যন্ত আমি এই সিরিজেই প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। সবচেয়ে বাজে বিষয় যেটা হতে পারে, মাঝপথেই ইতি টেনে দেওয়া। সঙ্গে এও বলা যায়, ‘দুঃখিত ছেলেরা, আমার বিদায়। আমার যথেষ্ট হয়েছে’। আমার মনে হয় না নেতৃত্বের স্বরূপ এমন। আমাদের এই সময়ে একসঙ্গে থাকতে হবে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পরই বিবেচনা করবো আমি কোথায় আছি।’

টেস্টকে বিদায়ের সঙ্গে ওয়ানডের দায়িত্বটাও ছেড়ে দিতে রাজি ফাফ ডু প্লেসি, ‘এই বছরে খুব বেশি টেস্ট নেই। তবে একটি বড় টেস্ট সামনে আছে, যেখানে আমাদের সর্বোচ্চ দিয়ে সিরিজটি ড্র করতে হবে। এরপর দীর্ঘ বিরতি। তখনই সুযোগ থাকবে কিছু নেতৃত্ব ভার ছেড়ে দেওয়ার। বিশেষ করে ওয়ানডেতে কাউকে সুযোগ দিতে চাইলে।’

টেস্ট ক্রিকেটের সময় শেষ হয়ে আসলেও সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে এখনও খেলে যেতে চান তিনি। এ ক্ষেত্রে ডু প্লেসির প্রেরণা নিজের পরিসংখ্যান, ‘নির্মমভাবে আমি নিজের প্রতি খুবই সৎ। এই ‍মুহূর্তে সাদা বলের ক্রিকেটেই আমি বেশি সফল। ওয়ানডেতে পরিসংখ্যান ভালো, বিশ্বের অন্যতম সেরা। টি-টোয়েন্টিতেও ভালো, তবে টেস্ট ক্রিকেটে যেখানে থাকার কথা ছিল, তেমনটা নয়।’

Print Friendly, PDF & Email