‘ক্রীড়াঙ্গনও আছে উন্নয়নের সড়কে’ : আরিফ খান জয়

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক : যুব ও ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয় বলেছেন, অন্যান্য ক্ষেত্রের মতো দেশের ক্রীড়াঙ্গনও আছে উন্নয়নের সড়কে। গত ৩ বছর দেশের ক্রীড়ার অনেক উন্নতি হয়েছে। আগামীতেও উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে।

আজ শুক্রবার (১৩জানুয়ারি) ঢাকা ক্লাবে ক্রীড়াঙ্গনের সার্বিক অবস্থা নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন ও মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেছেন তিনি।

সাবেক এ ফুটবলার আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে ফুটবলারদের উপস্থিতিই বেশি ছিল। তার সঙ্গে মঞ্চে ছিলেন স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের অধিনায়ক জাকারিয়া পিন্টু, সাবেক তারকা ফুটবলার কায়সার হামিদ, জুয়েল রানা, ইকবাল হোসেন। এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বধির ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি জাকির হোসেন ও রোলার স্কেটিং ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আসিফ হোসেন ও সাবেক তারকা হকি খেলোয়াড় মাহবুব এহসান রানা।

বর্তমান সরকারের সময়ে ক্রীড়াক্ষেত্র উন্নয়নের পথে হাঁটছে উল্লেখ করে আরিফ খান জয় বলেন,  ‘আমি ফুটবলার বলেই প্রথমে ফুটবলের কথা বলছি। ভুটানের কাছে ম্যাচ হারার পর অনেক হৈচৈ হয়েছে। আসলে এ হারটি ছিল একটি দুর্ঘনা। আমরা যদি অন্য দিকে তাকাই তাহলে দেখবো বয়স ভিত্তিক পর্যায়ে ও নারী ফুটবলে আমাদের সাফল্য আছে। ফুটবলের উন্নয়ন একটি ম্যাচ দিয়ে মূল্যায়ন করা সম্ভব না। দেখতে হবে ডেভেলপমেন্ট কী হচ্ছে। বয়স ভিত্তিক দলগুলো যখন ভালো করে তখন বুঝতে হবে সেখানে উন্নয়নের ছোঁয়া আছে।’

গত তিন বছরে ক্রীড়াঙ্গনের সাফল্যগুলো নির্দিষ্ট করেই উল্লেখ করেছেন আরিফ খান জয়, ‘ক্রিকেটে বড় বড় দেশকে হারানো। ক্রিকেটার মুস্তাফিজ, মিরাজ ও নারী ফুটবলার সাবিনার উঠে আসাও প্রমাণ করে উন্নয়নের সড়কেই আছি আমরা। গত এসএ গেমসে সাঁতারু মাহফুজা খাতুন শিলা, শ্যুটার শাকিল আহমেদ ও ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত স্বর্ণ জিতে দেশের মুখ উজ্জ্বল করেছেন।’

যুব এশিয়া কাপ হকি, হকিতে এএইচএফ কাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়া প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘হকিতে ভবিষ্যত আছে। যুব দল ভারতের কাছে হেরে রানার্সআপ হয়েছে। কিন্তু দুর্দান্ত খেলেছেন আমাদের ছেলেরা। মাঝে সাংগঠনিক সমস্যার কারণে হকি কিছুদিন স্থবির ছিল। আমি ধন্যবাদ জানাই বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনকে। তার উদ্যোগে হকির সমস্যার সমাধান হয়েছে। হকি এখন একটা পর্যায়ে আছে। এশিয়ান হকি ফেডারেশন কাপে জাতীয় দলের চ্যাম্পিয়ন হওয়াটাই তার উদাহরণ। এখন বিভিন্ন খেলা খেলে অনেক অনেক অর্থ উপার্জন করছেন-এটাই হলো ডেভেলপমেন্ট।’

Print Friendly, PDF & Email