রাবাদার শাস্তি বাতিলে স্মিথের কঠোর সমালোচনা

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক : দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ হয়েছিলেন কাগিসো রাবাদা। যাতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ শেষ হয়ে গিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকান পেসারের। কিন্তু আপিল পক্ষে আসায় শাস্তি বাতিল হয়ে গেছে তার। ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) এই সিদ্ধান্তের কঠিন সমালোচনা করেছেন স্টিভেন স্মিথ।

অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ককে ‘ইচ্ছা করে’ ধাক্কা দেওয়ায় বড় শাস্তি শুনেছিলেন রাবাদা। পোর্ট এলিজাবেথ টেস্টে স্মিথকে আউট করার পর পিচের মাঝামাঝি জায়গায় কাঁধ দিয়ে ধাক্কা মারেন প্রোটিয়া পেসার। ম্যাচ রেফারি জেফ ক্রো’র চোখে অপরাধটা গুরুতর হওয়ায় আচরণবিধি লঙ্ঘনের দ্বিতীয় মাত্রায় শাস্তি পান রাবাদা। যে কারণে ৮ ডিমেরিট পয়েন্টে নিষিদ্ধ হন দুই টেস্ট।

কেপ টাউন টেস্টের আগে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের আপিলে ওই শাস্তি উঠে গেছে রাবাদার। আইসিসির এই সিদ্ধান্তের দিকে আঙুল তুলেছেন স্মিথ, ‘আইসিসি একটি মানদণ্ড স্থাপন করেছে, সত্যিই কি করেছে? ধাক্কাটা পরিষ্কার ছিল। আমি নিশ্চয় আমার বোলারদের বলব না যে, উইকেট পাওয়ার পর পথ আটকে রাখো। আমার মনে হয় না এটা হওয়া উচিত ও এটা খেলার অংশের মধ্যে পড়ে।’

পিচের মধ্যে রাবাদার দেওয়া ধাক্কার ফুটেজ দেখেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ক্রো। তবে ভিডিও ফুটেজের চেয়ে ধাক্কাটা অনেক বেশি জোরে ছিল বলে দাবি স্মিথের, ‘আমি নিশ্চিত ফুটেজে যেটা দেখা গেছে, ধাক্কাটা তার চেয়ে জোরে ছিল। ওটা অবশ্য আমাকে খুব বেশি প্রভাবিত করেনি। কোনও খেলোয়াড়কে আউট করার পর বোলার উৎসব করবেই।’ সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘কিন্তু অতিরিক্ত উদযাপনের কারণটা কী? ধাক্কাটা ইচ্ছা করে ছিল নাকি ছিল না, সেটা দেখেই তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

রাবাদার আপিল কার্যকর হওয়ার প্রক্রিয়াকে ‘মজাদার’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক, ‘মাঠে যেটা হয়েছে এবং পরবর্তীতে যে প্রক্রিয়ায় আপিলের মাধ্যমে সে (রাবাদা) ছাড়পত্র পেল, সেটা সত্যিই মজাদার।’ 

Print Friendly, PDF & Email