খেলার মাঠে প্রশিক্ষণ কেন্দ্র!

স্পোর্টস লাইফপ্রতিবেদক : নোয়াখালী জেলার কবিরহাট উপজেলার অন্তর্গত ২নং সোন্দলপুর ইউনিয়নের মধ্যসোন্দলপুর প্রাইমারি স্কুলের দক্ষিণ পাশের খোলা জায়গায় স্কুলের মাঠ অবস্থিত।

এলাকার ২-৩ বর্গ কি.মি. মধ্যে কোনো ব্যক্তি মারা গেলে অত্র এলাকার কোনো খালি মাঠ না থাকায় ওই মাঠে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া বাৎসরিক ওয়াজ মাহফিল, ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও বাচ্চাদের খেলাধুলা-চিত্তবিনোদনের একমাত্র মাঠ এই মধ্যসোন্দলপুর প্রাইমারি স্কুল মাঠ।

মাঠটি ইতোমধ্যে রাস্তা সম্প্রসারণের কারণে ক্ষীণ হয়ে গেছে। শোনা যাচ্ছে, সরকার অত্র উপজেলার প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষকদের ট্রেনিংয়ের জন্য এই মাঠে একটি বহুতলবিশিষ্ট ভবন নির্মাণ করবে। প্রাইমারি স্কুলের সম্প্রসারণের আওতায় ইতোমধ্যে স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের জন্য একটি দ্বিতল ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।

পুরনো টিনের ঘরের স্কুলটি জীর্ণ-শীর্ণ অবস্থায় পড়ে আছে। এই জীর্ণ টিনের ঘর ভেঙে ওই স্থানে শিক্ষক প্রশিক্ষণ সেন্টার নির্মাণ করা হলে এলাকাবাসীর কোনো আপত্তি থাকবে না। বাংলাদেশ ঘনবসতির দেশ। এছাড়া বিনা কারণে বিভিন্ন মাঠ এমনিতেই দখল হয়ে যাচ্ছে।

এই খালি মাঠে শিক্ষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণ হলে এলাকাবাসীর বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রমে প্রতিবন্ধকতা ছাড়াও গ্রাম তথা স্কুলের ছেলে-মেয়েদের চিত্তবিনোদনের সবেধন নীলমণি এই মাঠটি বিলুপ্ত হয়ে যাবে।

শিক্ষক ট্রেনিং সেন্টার হোক এলাকাবাসী তা চায় কিন্তু খেলার কোনো মাঠ দখল করে যেন তা নির্মাণ না হয়।

১৯২৭ সালে মরহুম মুজাহিদ মিয়া, মরহুম একেএম সামছুল হক, মরহুম একেএম ফজলুল হক উক্ত জায়গাটি মসজিদ ও স্কুলকে দান করে গেছেন।

সেই দানের জায়গা অন্যভাবে ব্যবহার করা থেকে সংশ্লিষ্টদের বিরত থাকার জন্য এলাকাবাসী ঊর্ধ্বতন মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে।

Print Friendly, PDF & Email