ছয় মাসের ছেলেকে সাঁতার শেখাতে চাইছেন ফেলপস!‌

স্পোর্টস লাইফডেস্ক : যেমন বাবা, তেমন ছেলে। না, এখনই বলার সময় হয়নি। তাতে কী?‌ ছয় মাসের ছোট্ট বুমার নেমে পড়ল জলে!‌ তবে সে নেমে পড়ায়, তার নিজের ইচ্ছে ছিল না এতটুকু।

উল্টে বাবা মাইকেল ফেলপসই জোর করে ছেলেকে নামিয়েছিলেন জলে। সাঁতার শেখাতে!‌ কিন্তু বাবার শেখানোর ইচ্ছে হলে কী হবে?‌ বুমারের যে শেখার ইচ্ছেই ছিল না মোটে। জলে নেমে প্রথমে এক প্রস্ত কান্নাকাটি। তারপর বাবার মুখ আছড়ে দেওয়া। শেষে ঘুমিয়ে পড়া!‌ সবই করেছে বুমার। খালি সাঁতারটাই কাটেনি!‌ ছেলের কীর্তি দেখে হেসে লুটোপুটি খেয়েছেন ফেলপস।

বলেছেন, ‘‌আরে ও তো কেঁদেই অস্থির। ও খালি জলে মুখ গুজে ফেলছিল। একটুও যে ভাল লাগছে না ব্যাপার–স্যাপার, ওই পুচকেও বুঝিয়ে দিচ্ছিল।’‌ ফেলপস এই মুহূর্তে নিজের শহর বাল্টিমোরে ছুটি কাটাচ্ছেন। আর ছুটি কাটানোর ফাঁকেই ‘‌মিডোব্রুক অ্যাকোয়াটিক সেন্টারে’‌ গিয়েছিলেন।

যেখানে নিজে এক সময় সাঁতার কাটতে শিখেছিলেন, ইচ্ছে ছিল সেখানেই ছেলেকে সাঁতারের প্রথম পাঠ শেখানো। যখন ছয় বছরের ছিলেন মাইকেল ফেলপস, সেই সময় তাঁকে সাঁতার শেখাতেন ক্যাথি বেনেট নামে এক মহিলা। ক্যাথি আর ফেলপস দু’‌জনে মিলে বুমারকে সাঁতার শেখাতে চেয়েছিলেন। কিন্তু প্রথমদিনের চেষ্টা পুরোপুরি ব্যর্থ।

জল গায়ে লাগতেই বুমার বাবার গাল খামচে ধরেছিল ভয়ে। তারপর ঠোঁট ফুলিয়ে কাঁদতে শুরু করে। তার পর আর কিছু না করে চুপটি করে ঘুমিয়ে পড়ে বাবার কোলে। জলের মধ্যেই!‌ প্রথমদিন ব্যর্থ হলেও, হাল ছাড়ছেন না মাইকেল ফেলপস। কী করে ছাড়বেন?‌ বিখ্যাত সাঁতারু বাবার ছেলে সাঁতার না জানলে হয়?‌  ‌

Print Friendly, PDF & Email