নিউজিল্যান্ডকেও হোয়াইটওয়াশ করলো পাকিস্তান

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কপ্রথমে অস্ট্রেলিয়া। এরপর নিউজিল্যান্ড। দুটি দলকেই টি-টোয়েন্টিতে হোয়াইটওয়াশের স্বাদ দিলো উড়তে থাকা পাকিস্তান। স্পিনারদের ঘূর্ণিতে কিউইদের এক প্রকার উড়িয়ে দেয় পাকিস্তান।

বাবর আজম ও মোহাম্মদ হাফিজের হাফসেঞ্চুরিতে ভর করে ১৬৭ রানের লক্ষ্য দেয় নিউজিল্যান্ডের সামনে। আর এরপর স্পিনাররা চেপে ধরেন। মাত্র ২৩ রানে শেষ ৮ উইকেট তুলে নিয়ে ৪৭ রানের দুর্দান্ত পায় পাকিস্তান। আর কিউইদের ৩-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশও করল।

রোববার (৪ নভেম্বর) দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নামে পাকিস্তান। ৩ উইকেট হারিয়ে ১৬৬ রান তোলে। জবাবে কেন উইলিয়ামসনের হাফসেঞ্চুরি কিছুটা আশাবাদী করে তুললেও পাকিস্তানের স্পিনারদের সামনে নিউজিল্যান্ডের বাকি ব্যাটসম্যানরা মাথা তুলেই দাঁড়াতে পারেননি। ১৬.৫ ওভারে ১১৯ রানেই অলআউট হয় ব্ল্যাক ক্যাপরা।

পাকিস্তানের শুরুটা অবশ্য ভালো হয়নি। ব্যক্তিগত ১১ রানেই ফেরেন ফখর জামান। ভাঙে পাকিস্তানের ২৯ রানের উদ্বোধনী জুটি। তারপর বাবর ও হাফিজের ব্যাট ঝলসে ওঠে। তাদের ব্যাট থেকে আসে ৯৪ রানের জুটি। কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের বলে ৫৮ বলে ৭ চার ও ২ ছয়ে ৭৯ রান করা বাবর ফেরেন। তবে হাফিজ থেকে যান শেষ বল পর্যন্ত। ৩৪ বলে চারটি চার ও দুটি ছয়ে ৫৩ রানে অপরাজিত থাকেন। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে ডি গ্র্যান্ডহোম সবচেয়ে বেশি ২ উইকেট নেন।

লক্ষ্য পূরণে নেমে মাত্র ১৩ রানে দুই উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড। তবে উইলিয়ামসন ও গ্লেন ফিলিপসের ৮৩ রানের জুটি ব্যাট আশাবাদী করে তোলে। কিন্তু ১৩তম ওভারে শাদাব খান তাদের এই জুটি ভেঙে দেন। কেন উইলিয়ামসন ৩৮ বলে ৮ চার ও ২ ছয়ে ৬০ রান খেলে ফেরেন। দুই বল পর ফিলিপসও ২৬ রানে সেই শাদাবের বলেই আউট হন।

এরপর উইকেটে দাড়াতেই পারেনি কিউইরা। পাকিস্তানের হয়ে শাদাব ৩ উইকেট নেন। দুটি করে উইকেট পান ইমাদ ওয়াসিম ও ওয়াকাস।

ম্যাচসেরা বাবর ও সিরিজের সেরা হন হাফিজ।

Print Friendly, PDF & Email