নিজেদের মাঠে বড় জয় পিএসজির

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক : নিজেদের মাঠে ফিরেই দারুণ জয় পেয়েছে পিএসজি। নেইমার-আনহেল ডি মারিয়া-এদিনসন কাভানির নৈপুণ্যে সাত গোলের রোমাঞ্চ ছড়ানো ম্যাচে স্ত্রাসবুরকে ৫-২ ব্যবধানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রিয়াল মাদ্রিদের কাছে হেরে আসা পিএসজি শীর্ষস্থান আরও শক্ত করেছে উনাই এমেরির দল।

এ জয়ে লিগের প্রথম পর্বে ২-১ ব্যবধানে হারের প্রতিশোধও নিল পিএসজি। গত ডিসেম্বরে স্ত্রাসবুরের মাঠে চলতি লিগে প্রথম হারের স্বাদ পেয়েছিল এমেরির দল।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগে রিয়াল মাদ্রিদের মাঠে ৩-১ গোলে হেরে আসা পিএসজি শনিবার নিজেদের মাঠে ষষ্ঠ মিনিটেই পিছিয়ে পড়ে। ডান দিক থেকে কেনি লালার ক্রসে দারুণ শটে ডান পোস্ট ঘেঁষে বল জালে পাঠান কোত দি ভোয়ার মিডফিল্ডার আহোলু।

গোল শোধ করতে চার মিনিট সময় নেয় পিএসজি। নেইমারের বাড়ানো বল প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড় বিপদমুক্ত করতে ব্যর্থ হলে ডি-বক্সে পেয়ে যান ইউলিয়ান ড্রাক্সলার। বাঁ পায়ের নিচু শটে দূরের পোস্ট ঘেষে জালে পাঠান জার্মান মিডফিল্ডার।

২১তম মিনিটে নেইমারের গোলে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। আর্জেন্টিনার মিডফিল্ডার জিওভানি লো সেলসোর ক্রস ধরে একজনকে ফাঁকি দিয়ে নিচু শট নিয়েছিলেন ব্রাজিলের এই ফরোয়ার্ড। গোলরক্ষক ঠেকালেও বল বিপদমুক্ত করতে পারেনি। নেইমার বল ধরে নিয়ন্ত্রণে রেখে জালে ঠেলে দেন। চলতি লিগে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের গোল হলো ১৯টি।

খেলা শুরু না হতেই আবার গোল। ফরাসি ডিফেন্ডার পাবলো মার্তিনেজের পা থেকে বল কেড়ে নিয়ে বাঁ পায়ের নিচু শটে কাছের পোস্ট দিয়ে জালে পাঠান আর্জেন্টিনার উইঙ্গার ডি মারিয়া।

ম্যাচের আধ ঘণ্টার মাথায় গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন কাভানি। বাঁ দিক থেকে নেইমারের ক্রসে উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকারের শট দুর্দান্তভাবে ঠেকান গোলরক্ষক ওকিজা। ৬৩তম মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর ভালো একটি সুযোগ নষ্ট হয় পিএসজির। নেইমারের উঁচু করে দেয়া বল বুক দিয়ে নামিয়ে নিচু ক্রস বাড়ান আলভেস। কিন্তু ফাঁকায় থেকেও গোল করতে পারেননি ডি মারিয়া।

৬৭তম মিনিটে ব্যবধান কমিয়ে ম্যাচ জমিয়ে তোলে স্ত্রাসবুর। সতীর্থের লম্বা পাস অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নুনো দি কস্তা বাড়ান স্তেফান বাহোকেনকে। জোরালো শটে কাছের পোস্ট দিয়ে লক্ষ্যভেদ করেন ফরাসি এই ফরোয়ার্ড।

৭৩তম মিনিটে ডান দিক থেকে বদলি মিডফিল্ডার হাভিয়ের পাস্তোরের ডিফেন্স চেরা পাস থেকে পাওয়া বল নিখুঁত চিপে গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে জালে জড়িয়ে দেন কাভানি।

ছয় মিনিট পর নেইমারের বাড়ানো বল গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে জালে পাঠিয়ে দারুণ রেকর্ডও গড়েন কাভানি। সুইডেনের জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচকে ছাড়িয়ে পিএসজির মাঠে সর্বোচ্চ ৮৬ গোলের রেকর্ড এখন উরুগুয়ের এই ফরোয়ার্ডের। চলতি লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা কাভানির এটি ২৩তম গোল।

একটু পর নেইমারের পাস পেয়ে ডি মারিয়ার শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান ওকিজা। ৮৬তম মিনিটে বাঁ দিক থেকে কাভানির বাড়ানো ক্রস ফাঁকায় থাকা পাস্তোরে কাজে লাগাতে পারায় ব্যবধান আরও বাড়েনি।

২৬ ম্যাচে ২২ জয় ও দুই ড্রয়ে ৬৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে পিএসজি। গত শুক্রবার দিঁজোকে ৪-০ গোলে হারানো মোনাকো ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email