নিজের ‘প্রিয়’ ইভেন্টেই সোনা জেতা হলো না ফেল্‌প্‌সের!

স্পোর্টস লাইফডেস্ক : অঘটন! কেউ একজন মাইকেল ফেল্‌প্‌সের কাছ থেকে সোনার পদকটা কেড়ে নিয়েছেন! রিও অলিম্পিকে ১০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে রুপা জিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হলো যুক্তরাষ্ট্রের কিংবদন্তি সাঁতারুকে। যে ‘একজন’ তাঁকে হারিয়ে দিয়েছেন, তাঁর নাম জোসেফ স্কুলিং। তাঁর কীর্তিও অনেক বড়।

সিঙ্গাপুরের প্রথম অলিম্পিয়ান হিসেবে সোনার পদক জিতলেন ২১ বছর বয়সী সাঁতারু। সেটিও এসেছে অলিম্পিক রেকর্ড গড়ে! ৫০.৩৯ সেকেন্ড নিয়ে অলিম্পিকের নতুন রেকর্ড গড়লেন স্কুলিং। ফেল্‌প্‌স সময় নিয়েছেন ৫০.৫৮ সেকেন্ড।

চমক আছে আরও একটি, ফেল্‌প্‌সের সমান টাইমিং করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার চ্যাড লে ক্লস ও হাঙ্গেরির লাসলো শেই।রিও অলিম্পিকে যেন নিজেকে ‘কিংবদন্তি’র চেয়েও বেশি কিছু প্রমাণ করে যাচ্ছিলেন ফেল্‌প্‌স। সোনা তিনি অনেকগুলোই জিতেছেন। ২০০৮ বেইজিং অলিম্পিকেই তো আট ইভেন্টের আটটিতেই সোনা জিতেছেন। কিন্তু এবারের রিও অলিম্পিকের গল্পটা ভিন্ন।

 এই ফেল্‌প্‌স যে অবসর থেকে ফেরা, মুটিয়ে যাওয়া শরীরকে কঠোর পরিশ্রম আর প্রত্যয়ে আবারও ঝরঝরে করে তোলা ফেল্‌প্‌স। নিজেকে আবারও সবচেয়ে উঁচু বেদিতে উঠিয়ে নিয়ে আসা ফেল্‌প্‌স। রিওতে আগের চারটি ইভেন্টেই সোনা জিতে সব মিলিয়ে সোনার পদকের সংখ্যাও নিয়ে গিয়েছিলেন ২২-এ। কিন্তু নিজের ‘প্রিয়’ ইভেন্টেই সোনা জেতা হলো না। আগের তিন অলিম্পিকেই সোনা জিতে ১০০ মিটার বাটারফ্লাইকে যেন ‘ব্যক্তিগত’ ইভেন্টই বানিয়ে রেখেছিলেন ফেল্‌প্‌স।

আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন রিও অলিম্পিকই তাঁর শেষ। বয়সও হয়ে গেছে ৩১। যুক্তরাষ্ট্রের ‘জলমানবে’র এটিই ছিল অলিম্পিকে ব্যক্তিগত শেষ ইভেন্ট। সেটিকে সোনার মোড়ানো আর হলো না।

অবশ্য আক্ষেপ ভোলার শেষ একটা সুযোগ ফেল্‌প্‌স পাচ্ছেন। রোববার ১০০ মিটার মিডলের রিলেতে অংশ নেবেন যুক্তরাষ্ট্রের সাঁতারু। অলিম্পিকে এই ইভেন্টে কখনোই হারেনি যুক্তরাষ্ট্র। ২৩টি সোনা জিতে বিদায় নেওয়ার একটি সুযোগ তাই পাচ্ছেন কিংবদন্তি।

Print Friendly, PDF & Email