পুয়ের্তো রিকোকে ইতিহাসের প্রথম সোনা জেতালেন মনিকা

স্পোর্টস লাইফডেস্ক : পুয়ের্তো রিকোর জাতীয় সঙ্গীত বাজছে অলিম্পিকে। অঝোরে কাঁদছেন মনিকা পাইগ। এই প্রথম যুক্তরাষ্ট্র শাসিত দ্বীপটির জাতীয় সঙ্গীত বাজলো অলিম্পিকে। রিওতে সেই ইতিহাস গড়া সোনার মেয়ে মনিকা। ২২ বছরের এই লাতিন আমেরিকান খেলোয়াড় দেশকে ইতিহাসের প্রথম অলিম্পিক সোনা জিতিয়েছেন।

টেনিসে নারীদের এককের অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন মনিকা। ৭০ বিলিয়ন ডলার দেনার দায়ে ডুবে থাকা দেশকে দিয়েছেন নির্মল উৎসবের উপলক্ষ্য। বক্সিং, বেসবল ও রিকি মার্টিনের দেশ পুয়ের্তো রিকো। সেখান থেকে টেনিসে উঠে আসা বিস্ময়ের ব্যাপার। কিন্তু সেই বিস্ময় জন্ম দেওয়া মনিকা অলিম্পিকের অষ্টম দিনে টেনিস এককের ফাইনালে হারিয়েছেন বিশ্বের দুই নম্বর খেলোয়াড় অ্যাঞ্জেলিক কারবারকে।

মনিকার জয় ৬-৪, ৪-৬, ৬-১ এর। ১৯৪৮ সাল থেকে অলিম্পিকে অ্যাথলেট পাঠায় পুয়ের্তো রিকো। মনিকার আগে আটটি পদক জিতেছে। এর ৬টি সোনা, দুটি রুপা। পুয়ের্তো রিকোকে অলিম্পিক পদক এনে দেওয়া প্রথম নারী অ্যাথলেটও তিনি। বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ের ৩৪ নম্বরে থাকা মনিকা রিওতে এসেছিলেন উইম্বলডন ও মন্ট্রিয়ালে প্রথম রাউন্ডে হারের ক্ষত নিয়ে।

জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার সময় গানের কথাগুলো নিয়ে ঝামেলা হচ্ছিল মনিকার। এই ফাইনালের আগে সকালেই তার বাবা জাতীয় সঙ্গীতের লিরিকস পাঠিয়েছেন ইমেইলে। পুয়ের্তো রিকোতে জন্ম হলেও জীবনের বেশিরভাগ সময় মনিকা কাটিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের মায়ামিতে।

Print Friendly, PDF & Email