ফেনির বিরুদ্ধে কষ্ট করে জিতলো ঢাকা আবাহনী

স্পোর্টস লাইফ, প্রতিবেদক : ‘জেবি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ’ (বিপিএল) ফুটবলে শুক্রবার এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত প্রথম ম্যাচে ফেনী সকার ক্লাবকে ১-০ গোলে হারিয়েছে ঢাকা আবাহনী লিমিটেড।

শুক্রবার ছুটির দিন বলেই হয়তো এদিন অন্যদিনের চেয়ে স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে দর্শক সমাগম হয়েছিল বেশি। এ কদিন ধরে শুধু ভরা থাকতো পূর্ব গ্যালারি। এদিন পশ্চিম গ্যালারিতে কিছু দর্শককে দেখা যায় খেলা উপভোগ করতে।

চোট ছিল বলে আবাহনীকে এদিন তাদের নিয়মিত অধিনায়ক-ডিফেন্ডার আরিফুল ইসলামকে ছাড়াই খেলতে নামে। তবে তাদের খেলায় সেটা তেমন প্রভাব ফেলেনি। দলনায়কের দায়িত্ব পালন করেন আরেক ডিফেন্ডার মামুন মিয়া।

পুরো ম্যাচটি ছিল দ্রুতগতির এবং আক্রমণাতক। ফেনী সকার হারলেও তাদের খেলা ছিল প্রশংসনীয়। উভয় দলই প্রচুর আক্রমণ করে খেলে। কেবল একটি সুযোগ কাজে লাগিয়ে কেল্লাফতে করে ফেলে আবাহনী। সেক্ষেত্রে দুভার্গ্যই বলতে হবে দারুণ খেলা ফেনী সকারকে।

গত লীগে ‘দ্য স্কাই ব্লু ব্রিগেড’ খ্যাত ঢাকা আবাহনী দুবারই হারায় ফেনীকে (৪-০ এবং ৩-০ গোলে)। সর্বশেষ সাক্ষাতে এবারের ফেডারেশন কাপেও গ্রুপ পর্বে আবাহনীই জেতে, ১-০ গোলে। গত লীগে ১১ দলের মধ্যে অষ্টম হয় ফেনী সকার। আর আবাহনী হয়েছিল চতুর্থ। ‘হেনিয়ান’ এবং ‘দ্য রেড এন্ড হোয়াইট’ খ্যাত ফেনী সকার এবারের লীগে নিজেদের প্রথম খেলায় ১-১ গোলে ড্র করে ব্রাদার্সের সঙ্গে।

পেশাদার যুগে শুরু হওয়া প্রিমিয়ার লীগের সবচেয়ে বেশি ৪ বারের শিরোপাধারী ঢাকা আবাহনী। তাদের মোট লীগ শিরোপা ১১টি। তবে অনেকদিন ধরেই লীগে সাফল্য পাচ্ছে না তারা। সর্বশেষ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ২০১১ সালে। তবে এই মৌসুমের শুরুতেই (গত জুনে) ফেডারেশন কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়ে নিজেদের শক্তিমত্তার জানান দেয় তারা।

এবার প্রিমিয়ার লীগেরও শিরোপা পুনরুদ্ধার করতে চায় দলটি। যদিও নিজেদের প্রথম ম্যাচে তারা ১-১ গোলে ড্র করে চট্টগ্রাম আবাহনীর সঙ্গে। ফেনী সকারকে হারিয়ে জয়ের ধারা-অভিযান শুরু করলো তারা।

খেলার শুরু থেকেই আক্রমণাতক স্টাইলে খেলে উভয় দল। করে আক্রমণ ও পাল্টা আক্রমণ। তবে আসল কাজটিই করতে ব্যর্থ হচ্ছিল দু’দল। অবশেষে ব্যর্থতার অচলায়তন ভেঙ্গে সফল হয় আবাহনীই। ম্যাচের তখন ৪১ মিনিট। ডিফেন্ডার শাকিল আহমেদ বল নিয়ে ডি-বক্সে বল ফেলেন।

ওখানে নাইজিরিয়ান ফরোয়ার্ড সানডে চিজোবা গোলপোস্ট লক্ষ্য করে যে শট নেন, তা ঠিকমতো ধরতে পারেননি ফেনী সকারের গোলরক্ষক সুজন চৌধুরী। বল তার হাত থেকে ফস্কে যায়। আবাহনীর সুযোগ সন্ধানী মিডফিল্ডার জুয়েল রানা আর দেরি করেননি। শুয়ে পড়ে পায়ে-বলের সংযোগ ঘটিয়ে দেন। ব্যস, বল আশ্রয় নেয় তার কাঙ্খিত গন্তব্যে (১-০)।

দ্বিতীয়ার্ধেও সমানতালে খেলে যায় সকার-আবাহনী। কিন্তু আর কোন গোল হয়নি। রেফারি ভারত চন্দ্র গৌড় খেলা শেষের বাঁশি বাজালে তিন পয়েন্ট পাওয়ার আনন্দে আবাহনী (২ খেলায় ৪ পয়েন্ট) এবং পয়েন্ট খোয়ানোর বেদনা নিয়ে মাঠ ছাড়ে ফেনী সকার (সমান খেলায় ১ পয়েন্ট)।

Print Friendly, PDF & Email