ফ্লোরিডা থেকে সকল প্রবাসী খেলোয়াড়দের খোঁজ খবরের চেষ্টা করছেন আবদুল গাফফার

হুমায়ুন সম্রাটকরোনা ভাইরাস… অসময়ে জীবন থেকে জীবন কেড়ে নেয়া এক নিরব ঘাতক ভাইরাস। বর্তমান সময়ে যা সারা পৃথিবীতে প্রেসিডেন্ট, মন্ত্রী, যুবরাজ থেকে হত দরিদ্র সকলের কাছে এক নম্বর ভিলেন হিসেবে এরই মধ্যে চিহ্নিত হয়েছে।

করোনা ভাইরাসের অদৃশ্য ভয়াল থাবায় পৃথিবী আজ টালমাটাল। সারা পৃথিবীর মানুষ আজ লকডাউনে ঘর বন্ধি। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ মৃত্যু বরণ করছে এই করোনা ভাইরাসে। ২এপ্রিল পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে দুই লক্ষ ষলো হাজার সাতশ একুশ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৫,১৩৭জন। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আশঙ্কা করছেন তার দেশে ২লক্ষেরও বেশি মানুষ মারা যেতে পারে এই করোনায়। 

পৃথিবী জুড়ে যখন এমন উৎকন্ঠা অবস্থা বিরাজ করছে তখন গত ১৬মার্চ বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় গিয়ে লকডাউনে আটকা পরেন জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত ফুটবলার আবদুল গাফফার। চলতি মাসের ৪এপ্রিল সাবেক এ ফুটবলারের বড় ছেলে তাহসিন গাফফারের বিয়ের দিন ছিল। কিন্তু চলমান পরিস্থিতিতে ছেলের বিয়ে বাতিল হয়েছে। এখন স্বপরিবারে ফ্লোরিডায় আছেন লকডাউনে।

তবে কঠিন এ সময়ে সাবেক এ ফুটবলার আতঙ্কে থাকলেও চুপ করে ঘরে বসে নেই। যুক্তরাষ্ট্র, কানাডাসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে থাকা সকল বাংলাদেশী খেলোয়াড়দের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করছেন।

ফ্লোরিডা থেকে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে স্পোর্টস লাইফ এর সাথে কথা হয় গাফফারের। তিনি বলেন, বড় ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠান ছিল এ মাসে। সে উপলক্ষে বাংলাদেশ থেকে ১৬মার্চ এখানে এসে আমি আটকে যায়। আমিও আমার পরিবারের সবাই ভাল আছি। আমাদের অনেক খেলোয়াড় যেমন- এ্যাথলেটের রব ও ডন, ব্রাদার্স ইউনিয়নের ফজল, আবাহনী, মোহামেডান ও জাতীয় দলে খেলা সাইখ, ধানমন্ডির মোস্তফা, বিজেএমসির মকুল, মোহামেডান দলের অধিনায়ক রনজিত, জাতীয় দলের কহিনুর ভাই, মোহামেডান ও জাতীয় দলের আবুল, গোলকিপার সান্টু ভাই। এছাড়া ক্রিকেটার ইউসুফ বাবু, নাজির সিরাজি ও মনির। কানাডার টরেন্টোতে থাকা মামুন জোয়ারদার, রুমি, মিজান, হকি তারকা তিসা ও ক্রিকেটার হালিম শাহ সহ বিভিন্ন দেশে যে যেখানে আছে সবার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছি।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান পরিস্থিতি খুব খারাপ আমরা সবাই জানি। আমরা যে যেখানে আছি সেখান থেকে একে অন্যের খোঁজ খবর নেয়াটা যদি সম্ভব হয় তাহলে সবার ভাল লাগবে। আর জানাও যাবে কে কেমন আছে। প্রবাসে না থাকলে প্রবাসীর মর্ম বুঝা যায় না। কাউকে যদি কোন ভাবে সাহায্য করা যায় সে লক্ষ্যে আমি সবার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছি।

এছাড়া তিনি বাংলাদেশে যেসব বিত্তবান খেলোয়াড়রা আছেন তাদেরকে সাধ্যমত এই কঠিন পরিস্থিতিতে গরিব ও দুস্থ খেলোয়াড় এবং পাশাপাশি অতি সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানান।

পাশাপাশি তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের জন্য সকল নির্দেশনা সবাইকে মেনে চলতেও অনুরোধ করেন।

প্রয়োজনে প্রবাসি খেলোয়াড়দের অবস্থা সম্পর্কে কোন তথ্যের জন্য ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে যোগাযোগ করতে বলেছেন দেশের এ সাবেক ফুটবলার।

https://www.facebook.com/abdul.gaffar.908347 

Print Friendly, PDF & Email