বিপিএলের পারিশ্রমিক নিয়ে আক্ষেপ মুশফিকের

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কঘরোয়া টুর্নামেন্টের পারিশ্রমিক নিয়ে স্থানীয় ক্রিকেটারদের অভিযোগ দীর্ঘদিনের। গ্ল্যামার আর পারিশ্রমিক মিলিয়ে ক্রিকেটারদের অনেকে তাকিয়ে থাকেন বিপিএলের দিকে। এবার বিসিবির ব্যবস্থাপনার আসরে দেশের সবচেয়ে জৌলুসময় টুর্নামেন্টেও পারিশ্রমিক কমেছে অনেকখানি। টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই তাই খেদ শোনা গেল দেশের সিনিয়র ক্রিকেটার ও খুলনা টাইগার্স অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের কণ্ঠে।

গত অক্টোবরে ক্রিকেটারদের ধর্মঘটে অন্যতম দাবি ছিল বিদেশি ক্রিকেটারদের সঙ্গে স্থানীয়দের পারিশ্রমিকের সামঞ্জস্য রাখা। বোর্ডের পক্ষ থেকে দাবি মানার আশ্বাস দেওয়া হলেও বঙ্গবন্ধু বিপিএলে পড়েনি তার প্রতিফলন। বিদেশি ক্রিকেটারদের চেয়ে স্থানীয়দের পারিশ্রমিকের অঙ্ক অনেকটাই কম।

এবারের টুর্নামেন্টে স্থানীয় ক্রিকেটারদের সর্বোচ্চ ক্যাটাগরি ‘এ’ প্লাস। এই ক্যাটাগরিতে থাকা ৪ ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মুর্তজা, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, তামিম ইকবাল পাবেন ৫০ লাখ টাকা করে। বিদেশিদের শীর্ষ ক্যাটাগরির পারিশ্রমিক সেখানে ১ লাখ ডলার, টাকায় যা ৮৪ লাখের মতো। আন্দ্রে রাসেল, শোয়েব মালিকের মতো তারকারা পাচ্ছেন আরও অনেক বেশি।

দেশের ‘এ’ ক্যাটাগরির ৯ ক্রিকেটারের পারিশ্রমিক ২৫ লাখ। এছাড়া ‘বি’ ক্যাটাগরিতে পারিশ্রমিক ১৮ লাখ টাকা, ‘সি’ ক্যাটাগরিতে ১২ লাখ, ‘ডি’ ক্যাটাগরিতে ৮ লাখ ও ‘ই’ ক্যাটাগরিতে পারিশ্রমিক নির্ধারণ করা হয়েছে ৫ লাখ টাকা।

মুশফিকের চাওয়া, বিপিএলের পরবর্তী আসর থেকে বাড়ানো হোক স্থানীয় ক্রিকেটারদের বেতন-ভাতা। পারফরম্যান্স দিয়ে যে পারিশ্রমিক বাড়ানোর দাবিকে যৌক্তিক প্রমাণ করতে হবে, সেটিও মানছেন তিনি।

“আমরা সবসময় প্রত্যাশামতো পারিশ্রমিক পাই না। এবার তো অনেক তাড়াহুড়ো করে আয়োজন হয়েছে। টুর্নামেন্টটা যে এবার হচ্ছে, সেটাই অনেক। (পারিশ্রমিক নিয়ে) আমরা নীতি-নির্ধারকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছি।  পরবর্তী আসর থেকে বেতন-ভাতা আমরা ঠিকঠাক পাব বলে আশা করি।”

“আমরা সারা বছর খেলি, তারপরও দেখা যায় অনেকের থেকে আমরা কম পাচ্ছি। এটা আমাদের জন্য ডিসক্রেডিট। বিশ্বের প্রায় সব লিগে কিন্তু স্থানীয় খেলোয়াররা বেশি পারিশ্রমিক পান। আমাদের নিজেদের খেলার মানও বাড়াতে হবে। আশা করব, আমরা যেন এবার ভাল খেলা দেখাতে পারি, যাতে আমাদের বেতন বৃদ্ধি পায়। এবারের বিপিএল তাই সবার জন্য অনেক চ্যালেঞ্জিং, আমার জন্যও চ্যালেঞ্জিং।”

পারিশ্রমিক নিয়ে বরাবরই সোচ্চার মুশফিক জানালেন, পরের আসরে পারিশ্রমিক বাড়ানোর আশ্বাস এরমধ্যেই তাদের দিয়েছে বোর্ড।  স্থানীয় ক্রিকেটারদের অর্থনৈতিক দিকটায় নজর দিলে, তা দেশের ক্রিকেটের জন্যই সুফল বয়ে আনবে বলে মনে করেন মুশফিক।

“(পারিশ্রমিক বাড়ানোর) আশ্বাস পেয়েছি আমরা, পরের বিপিএল থেকেই হবে। বিদেশি ক্রিকেটারদের সঙ্গে পার্থক্যটা যাতে কম হয়, সেটা অবশ্যই খেয়াল রাখা উচিত।”

“৫০ থেকে ৬০ জন আছে যারা প্রতি বছর পারফর্ম করে যাচ্ছে। এমনকি বিপিএলে অনেকে ভাল খেলে। শফিউল, তাইজুল, রাহি এরা সবাই ভাল খেলেছে, যারা কিনা ‘বি’ কিংবা ‘সি’ গ্রেডে আছে। এদের দিকটা দেখলে আমি মনে করি, বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্যেই ভালো হবে।”

Print Friendly, PDF & Email