বিপিএল ফুটবলে আরামবাগকে হারালো আবাহনী

স্পোর্টস লাইফ, প্রতিবেদক আবাহনীর নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড সোনডে সিজুবার জোড়া গোলে আরামবাগ ক্রীড়া সংঘকে ২-০ ব্যবধানে হারিয়ে জেবি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ফুটবলে নিজেদের তৃতীয় জয় তুলে নিয়েছে ঢাকা আবাহনী।

শনিবার (২০ আগস্ট) বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে কিক অফের শুরু থেকেই আক্রমণাত্নক খেলা উপহার দিতে থাকে ঢাকা আবাহনী। প্রথমার্ধের ৪ মিনিটে সানডে সিজুবা মাঝমাঠ থেকে একাই বল নিয়ে ঢুকে পড়েছিলেন আরামবাগ বক্সে। কিন্তু আরামবাগ রক্ষণভাগের খেলোয়াড় ইসা ইউসুফ তাকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় আবাহনী।

পেনাল্টি শটটি নিয়েছিলেন সানডেই কিন্তু শটটি ততটি কৌশলী না হওয়ায় সামনে ঝাঁপিয়ে পড়ে প্রতিহত করেন মিতুল হাসান। এরপর সেই ফিরিয়ে দেয়া শট জালে বল জড়িয়ে আবাহনীকে ১-০ তে এগিয়ে দেন নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড সানডে সিজুবা।

এরপর ৩৭ মিনিটে আরও একটি গোলের দারুন সুযোগ হাতছাড়া করে আবাহনী। আরামবাগ রক্ষণকে ফাঁকি দিয়ে ফরোয়ার্ড ওয়াহেদ উদ্দিন ঢুকে পড়েছিলেন বক্সের মধ্যে। গোলরক্ষক মিতুল তাকে প্রতিহত করতে পোষ্ট ছেড়ে এসেছিলেন সামনে। কিন্তু বিধি বাম ফাঁকা পোষ্ট পেয়েও সুযোগটি কাজে লাগে লাগাতে পারেননি ওয়হেদ। কেননা তার শটটি চলে যায় পোষ্টের বাইরে দিয়ে।

পিছিয়ে পড়ে সমতায় ফিরতে বেশ কয়েকবার সাইফুল বারী টিটুর শিষ্যরা চেয়েছে আবাহনীর রক্ষণ ভাঙতে কিন্তু তাদের প্রতিটি প্রচেষ্টা ব্যর্থ হলে ১-০তে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় জর্জ কোটানের শিষ্যরা।

বিরতি থেকে ফিরে ৬৬ মিনিটে আরামবাগের নাইজেরিয়ান আবাহনী গোল পোষ্টের বাঁ দিক দিয়ে বল নিয়ে বক্সে ঢুকে পড়েছিলেন। শটও নিয়েছিলেন কিন্তু তার শটটি গোল পোষ্টের উপর দিয়ে চলে গেলে সমতায় ফিরতে ব্যর্থ হয় আরামবাগ।

তবে আরামবাগ ব্যর্থ হলেও সফলতা ঠিকই ধরা দিয়েছে আবাহনী শিবিরে। ৮৫ মিনিটে আরেকবার জ্বলে উঠেন সানডে। বক্সের বেশ খানিকটা বাইরে থেকে একক প্রচেষ্টায় বল নিয়ে বক্সে ঢুকে পড়েন আবাহনীর এই নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড।

তবে তাকে প্রতিহত করতে রক্ষণভাগের কাউকে না দেখা গেলেও এগিয়ে এসেছিলেন গোলরক্ষক মিতুল। কিন্তু শেষ রক্ষায় পারেননি মিতুল। কেননা তাকে বেশ ‍কৌশলে ফাঁকি দিয়ে বাঁ পায়ের আলতো ছোঁয়ায় জালে বল ঠেলে আবাহনীকে ২-০ এর ব্যবধান এনে দেন সানডে সিজুবা।

এখানেই থেমে থাকেনি আকাশী নীল জার্সিধারীরা। আক্রমণের পসরা সাজিয়ে ম্যাচের শেষ সময় পর্যন্ত চেয়েছে ব্যবধান আরও বাড়াতে কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেটা না হলে ২-০ তে জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে এবারের ফেডারেশন কাপের শিরোপা জয়ীরা।

Print Friendly, PDF & Email