বিশ্বকাপে রোনালদোর দেহরক্ষী বুল ফাইটার

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্কসাত স্তরের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে রাশিয়া বিশ্বকাপে। কিন্তু তবুও মেসি-নেইমার-রোনালদোদের দেওয়া ইসলামিক স্টেটের (আইএস) হুমকি কিছুটা হলেও চিন্তায় ফেলেছে তাদের। বিশ্বকাপে না খেলতে হুমকি দেওয়া হয়েছে এই বড় তারকাদের।

এই হুমকি বেশ ভালোভাবেই আমলে নিয়েছেন পর্তুগাল তারকা রোনালদো। আর তাই নিজের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে রাশিয়া বিশ্বকাপে দেহরক্ষী নিয়োগ দিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের এই সুপারস্টার।

তবে এই দেহরক্ষী যেনতেনো কেউ নন। বিশ্বকাপ চলাকালীন তার দেহরক্ষী হিসেবে কাজ করবেন বিশ্বের অন্যতম সেরা বুল-ফাইটার নুনো মার্কোস। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা দ্য সানের মতে, ৬ ফুট ২ ইঞ্চির দানবীয় শরীরের নুনো একজন বুল ফাইটার হলেও একজন সাবেক সেনা সদস্য এবং মিক্সড মার্শাল আর্টসে পারদর্শী।

খালি মাথায় খ্যাপা ষাঁড়ের সঙ্গে লড়াই করেন নুনো। শুধু তাই নয়, খালি হাতে একা কম করে হলেও ১০ জন পুরুষের সঙ্গে লড়াই করতে সক্ষম। পর্তুগালে ফোরকাডোস নামে আটজনের একটি গ্রুপ রয়েছে নুনো মার্কোসের। তাদের কাজ হল, অবসর সময় ষাঁড়ের সঙ্গে লড়াই করা। এই গ্রুপটির মধ্যমণি হলেন রোনালদোর দেহরক্ষী নুনো।

দেহরক্ষী হিসেবে কেনো একজন বুল ফাইটারকে নিয়োগ দেওয়া হলো? এমন প্রশ্নের ভিত্তিতে রোনালদোর ঘনিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, বুল ফাইট দেখতে খুবই ভালোবাসেন রোনালদো। সেখানেই নুনোকে দেখেছেন তিনি। নুনোর বেশ কিছু বুল ফাইট দেখে পছন্দ হয়ে যায় রোনোলদোর। এরপর থেকে সিআর সেভেনের দেহরক্ষী হিসেবে কাজ করছেন তিনি।

কিয়েভে অনুষ্ঠিত চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালেও রোনালদোর দেহরক্ষী হিসেবে দেখা গেছে এই নুনোকে।

Print Friendly, PDF & Email