বোল্টকে হারাতেন জনসন!

স্পোর্টস লাইফডেস্ক : উসাইন বোল্টকে হারবেন? এও সম্ভব? ট্রাকে এমনই সব অবিশ্বাস্য রেকর্ড গড়েছেন বোল্ট যে বড় প্রতিযোগিতায় তিনি হারবেন, এটাও কেমন যেন অবিশ্বাস্য মনে হয়। তবে মাইকেল জনসন এসবের ধার ধারেন না। তাঁর ধারণা, যদি তাঁরা দুজন একসঙ্গে কখনো ট্র্যাকে নামতেন, তবে বিজয়ীর নাম বোল্ট নয়, জনসনই হতো।

হেসে উড়িয়ে দেওয়ার আগে বক্তার দিকে নজর দিয়ে নেওয়া ভালো। যিনি এই দাম্ভিক দাবি করছেন, তিনি নিজেও তো একজন কিংবদন্তি। বোল্টের আবির্ভাবের আগে ২০০ ও ৪০০ মিটারের রাজা তো ছিলেন তিনিই। ১৯৯৬ আটলান্টা অলিম্পিকে অবিশ্বাস্য এক দৌড়ে ২০০ মিটারের সোনা জিতেছিলেন।

মাত্র ১৯.৩২ সেকেন্ডে দৌড় শেষ করে গড়েছিলেন বিশ্ব রেকর্ড, যার শেষ ১০০ মিটার তিনি দৌড়েছিলেন ৯.২০ সেকেন্ডে। ওই অলিম্পিকেই তাঁর গড়া ৪০০ মিটারের অলিম্পিক রেকর্ড এখনো কেউ ভাঙতে পারেননি। তাঁর গড়া এই ইভেন্টের বিশ্ব রেকর্ডটিও এখনো অধরা রয়ে গেছে।
২০০ মিটারের ক্ষেত্রেও তা–ই ভাবা হচ্ছিল, কিন্তু ২০০৮ বেইজিং অলিম্পিকেই সব বদলে গেল।

জনসনের রেকর্ড ভেঙে বোল্ট নতুন রেকর্ড গড়লেন ১৯.৩০ সেকেন্ডের। সেটি আবার এক বছর পরেই ভেঙে দিলেন ১৯.১৯ সেকেন্ডের টাইমিং দিয়ে। কিন্তু জ্যামাইকান দৌড়বিদের এত সব রেকর্ডও জনসনকে নিজের শ্রেষ্ঠত্ব দাবি থেকে পিছু হটাতে পারছে না, ‘আমিই প্রথম হতাম।’ রেডিও টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সরাসরি দাবি জনসনের।

বোল্ট অবশ্য ২০০ মিটারের বিশ্ব রেকর্ডটি ১৯ সেকেন্ডের চেয়ে কমিয়ে নিয়ে আসতে চাইছেন। জনসনের ধারণা, তিনি ও বোল্ট যদি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতেন, তাহলে এ রেকর্ড এমনিতেই ১৯ সেকেন্ডের নিচে নেমে আসত, ‘তার ধারণা, রেকর্ডটি ১৯.০১ বা ১৯.০২ সেকেন্ড হতো। তবে আমি মনে করি, এটা হতো ১৮.৯৯। এ ক্ষেত্রেই আমরা ভিন্নমত পোষণ করি। একটি বিষয়ে আমরা দুজনই নিশ্চিত, আমাদের দুজনেরই ধারণা, সে–ই জিতত!’

Print Friendly, PDF & Email