মারক্রামকে অধিনায়ক করার সিদ্ধান্ত ঠিক ছিল না: স্মিথ

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক : মাত্র দুটি ওয়ানডে খেলে দক্ষিণ আফ্রিকার নেতৃত্ব পেয়েছিলেন এইডেন মারক্রাম। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জেতানো অধিনায়ক পারেননি আস্থার প্রতিদান দিতে। দেশের মাটিতে ১৭ ম্যাচ টানা জেতা প্রোটিয়ারা ভারতের কাছে হেরেছে ৫-১ ব্যবধানে। অনভিজ্ঞ একজনের হাতে অধিনায়কত্ব তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সাবেক অধিনায়ক গ্রায়েম স্মিথ।

প্রথম ওয়ানডেতে ফাফ দু প্লেসি চোট পেয়ে ছয় ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ থেকে ছিটকে যান। তার জায়গায় শেষ পাঁচ ম্যাচে অধিনায়কত্ব পান মারক্রাম। তার অধীনে কেবল জোহানেসবার্গে গোলাপি ম্যাচ জিতেছে প্রোটিয়ারা। অধিনায়ক হিসেবেও তিনি ব্যাটিংয়ে ছিলেন নিষ্প্রভ; ৮, ৩২, ২২, ৩২ ও ২৪ রান ছিল পাঁচ ইনিংসে। সব মিলিয়ে মাত্র ১১৮ রান।

২০০৩ সালের বিশ্বকাপ থেকে দ্রুত বিদায়ের পর মাত্র ২২ বছর বয়সে অধিনায়কত্ব পেয়েছিলেন স্মিথ। আর মারক্রাম দায়িত্ব পেলেন ২৩ বছর বয়সে। বয়সের বিচারে তাকে নেতৃত্ব দেওয়া নিয়ে কোনও প্রশ্ন তুলতে চান না স্মিথ। কিন্তু ‘আরও বিকশিত, উন্নত ও শক্তিশালী পারফরমার’ হওয়ার পর তাকে সেই জায়গায় দেখতে অসুবিধা ছিল না তার।

ওয়ান্ডারার্সে ক্রিকইনফোকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে স্মিথ বলেছেন, ‘আমি মনে করি না এই সিদ্ধান্ত সঠিক ছিল। প্রত্যেকে তার নেতৃত্ব নিয়ে কথা বলেছে। সম্ভবত আমার মুখে এ রকম কথা মানায় না, কারণ অল্প বয়সে আমাকেও এই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল।’

মারক্রামকে আরও সময় দেওয়া উচিত ছিল মনে করেন স্মিথ। দু প্লেসি বাদ পড়ায় তার জায়গায় হাশিম আমলা বা জেপি দুমিনি অধিনায়ক হবেন, এমন বিশ্বাস ছিল তার। স্মিথের শঙ্কা, ওয়ানডে ক্যারিয়ারের শুরুতেই নেতৃত্বের চাপ মারক্রামের আত্মবিশ্বাসে আঘাত না করে বসে! 

Print Friendly, PDF & Email