যুব গেমস ফুটবলে তরুনীদের বিভাগে সেমিতে ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা ও চট্টগ্রাম

স্পোর্টস লাইফ, প্রতিবেদক বাংলাদেশ যুব গেমসে তরুনী ফুটবল ডিসিপ্লিনে সেমিফাইনালে উঠেছে ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় দল। বৃহস্পতিবার (৮মার্চ) বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে মেয়েদের মোট ৩টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়।

সকাল সাড়ে ৯টায় অনুষ্ঠিত দিনের প্রথম খেলায় বরিশালের বিপক্ষে সাদিয়া ও সাহিদার হ্যাটট্রিকে ১১-০ গোলের ব্যবধানে বড় জয় পায় ঢাকা বিভাগীয় দল। দুপুর সাড়ে ১২টায় অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় ম্যাচে রনি আক্তারের একমাত্র গোলে রংপুরকে হারায় ময়মনসিংহ বিভাগীয় দল। এবং বিকেল ৩টায় অনুষ্ঠিত তৃতীয় খেলায় চট্টগ্রাম দল চম্পা মার্মা ও থুইমা চিং মার্মার হ্যাটিট্রিকে ১২-০ গোলের ব্যবধানে উড়িয়ে দেয় সিলেট দলকে।

সকালে অনুষ্ঠিত দিনের প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালে ঢাকা বিভাগীয় দলের কাছে গোল বন্যায় ভেসে যায় বরিশাল দল। বাংলাদেশ অ-১৪ জাতীয় দলে খেলা ও বিকেএসপির ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী সাদিয়া সরকারের হ্যাটট্রিকসহ ৪টি এবং অপর বিকেএসপির ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী সাহিদা আক্তার রিফার হ্যাটট্রিকসহ ৪টি গোলের সুবাদে ১১-০ গোলের ব্যবধানে বিশাল জয় পায় ঢাকা দল। জয়ী দলের পক্ষে আফঈদা খন্দকার প্রান্তি ২টি এবং অপর গোলটি করেন আর্শিকা জাহান আশা।

খেলার শুরু থেকেই গোলের জন্য বরিশালের সিমানায় আক্রমন করে খেলতে থাকে ঢাকার মেয়েরা। খেলার পুরো সময় জুড়ে বরিশালের উপর প্রভাব বিস্তার করে বিকেএসপির খেলোয়াড় নিয়ে গড়া ঢাকা দল। উল্লেখ্য খেলায় ঢাকা বিভাগের সিমানায় বল নিয়ে প্রবেশই করতে পারেনি বরিশালের মেয়েরা। খেলার ২১, ৩৯, ৪৩ ও ৭৩ মিনিটে হ্যাটট্রিকসহ ৪টি গোল করেন টাঙ্গাইলের মেয়ে সাহিদা আক্তার রিফা। আর ৩০, ৩৬, ৪২ ও ৫০ মিনিটে হ্যাটট্রিকসহ ৪টি গোল করেন নরসিংদীর মেয়ে সাদিয়া সরকার। এছাড়া আফঈফা ৪৫ ও ৫৯ মিনিটে করেন ২টি গোল। এবং খেলার ৬০ মিনিটে অপর গোলটি করেন আর্শিকা।

দিনের দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে গাঢ় পাহাড়ের কোল ঘেঁষে গড়ে উঠা কলসিন্দুর স্কুল এন্ড কলেজের ১৮জন মেয়ে নিয়ে তৈরী ময়মনসিংহ বিভাগীয় দল ১-০ গোলে রংপুর দলকে হারিয়ে সেমিফাইনালে নাম লেখায়। খেলার ৩৯ মিনিটে পেনাল্টি কিক থেকে দলের পক্ষে জয় সূচক গোলটি করেন রনি আক্তার। এরপর গোল সংখ্যা বাড়ানোর লক্ষ্যে রংপুরের সিমানায় মহিলা ফুটবলের ঐতিহ্য বহনকারী কলসিন্দুর গ্রামের মেয়েরা আক্রমন করে খেললেও আর গোলের দেখা পায়নি। শেষ পর্যন্ত ১-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ময়মনসিংহ তরুনী ফুটবল দল।

দিনের তৃতীয় ও শেষ কোয়ার্টার ফাইনালে চট্টগ্রামের কাছে ১২-০ গোলে উড়ে যায় সিলেট বিভাগীয় দল। বিজয়ী দলের কাছে শুরু থেকেই অসহায় হয়ে পড়ে সিলেটের মেয়েরা। জয়ী দলের পক্ষে চম্পা মার্মা খেলার ৬, ২৩, ২৬, ৩৩, ৬২ ও ৮৪ মিনিটে গোল করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করার পাশাপাশি চূড়ান্ত পর্বের খেলায় এক ম্যাচে সর্বোচ্চ ৬টি গোল করার কৃতিত্ব দেখায়। চট্টগ্রামের হয়ে খেলার ৬৪, ৭১ ও ৭২ মিনিটে গোল করে অপর হ্যাটট্রিকটি পূর্ণ করেন থুইমা চিং মার্মা। এছাড়া ১টি করে গোল করেন মাউচাই মার্মা, চুসাউ মার্মা ও থুইমা মার্মা।

উল্লেখ্য মেয়েদের ৭টি দল হওয়াতে লটারীর মাধ্যমে জয়ী হয়ে আগেই সেমিফাইনালে উঠে খুলনা বিভাগীয় দল।

আগামীকাল (শুক্রবার, ৯মার্চ) খেলার সূচি :
শুক্রবার (৯মার্চ) ছেলেদের ২টি কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ১০টায় প্রথম খেলায় মুখোমুখি হবে রাজশাহী ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় দল। বিকেল ৩টায় দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হবে সিলেট ও খুলনা বিভাগীয় দল।

Print Friendly, PDF & Email