রিও অলিম্পিকের ৪৫০,০০০ কনডম গেল কই!

স্পোর্টস লাইফডেস্ক : অলিম্পিক গেমসের সময় গেমস ভিলেজে আসলেই কি যৌনতার উৎসব হয়? রিও অলিম্পিকের আগের খবরে একটু চোখ বুলিয়ে নেন। দেখা যাচ্ছে মাত্র শেষ হওয়া আসরে অলিম্পিক অ্যাথলেটদের জন্য ৪৫০,০০০ (সাড়ে চার লাখ) কনডমের ব্যবস্থা ছিল। ১০,৫০০ অ্যাথলেট। গড়ে ৪২টি কনডম একেক জনের জন্য। ১,০০০০০ নারী কনডমও ছিল। তাহলে এর ব্যবহার নিশ্চয়ই হয়েছে! এই কারণেই প্রশ্নটা।

কিন্তু এই প্রশ্নের জবাব দিতে পারেন অলিম্পিক ভিলেজে ১৬ দিনের বেশি কাটিয়ে আসা অ্যাথলেটই। এবার আগের আসরকে ছাড়িয়ে গেছে কনডম। ২০১২ লন্ডন অলিম্পিকে অ্যাথলেটদের জন্য ছিল ১৫০,০০০ কনডম। উসাইন বোল্ট ব্রাজিলের ২০ বছরের যুবতী জেডি ডুয়ার্টেকে নিয়ে কিন্তু ভিলেজে নিজের রুমেই ফিরেছিলেন।

ব্রাজিলের এক নারী ডাইভার স্বদেশি পুরুষ ক্যানোইস্টের সাথে ‘ম্যারাথন সেক্স’ এর জন্য রুম থেকেই বের করে দিয়েছিলেন তার ডাইভিং পার্টনারকে। এ রকম আরো কিছু খবর আছে। অতীতেও অনেক খবর বেরিয়েছে। সুতরাং, আপনার মনে হতেই পারে যে অলিম্পিক ভিলেজে যৌনতার ছড়াছড়ি থাকে।

এই কৌতুহল মেটাতে আইরিশ একটি সংবাদপত্র তাদের এক ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়ের কাছে গেল। স্কট ইভান্স রিওর আসরের শেষ ষোলোতে গিয়ে জার্সি খুলে উদযাপন করেছিলেন। তার কাছে বিষয়টা তুলতে তিনি কি জানালেন শুনুন, “আমরা যাওয়ার আগে এমন গল্পই শুনে গেছি। তা ঠিক বটে ওখানে সব জায়গায় কনডম মেশিন বসানো ছিল। কিন্তু এ নিয়ে তিনটি অলিম্পিকে গেলাম।

কোনোবার এ নিয়ে পাগলাটে কিছু দেখিনি।” তবে এর সাথে তিনি জানাচ্ছেন, “ওখানে তো সুন্দর শরীরের একা থাকা অ্যাথলেটের ছড়াছড়ি। যার যার প্রতিযোগিতা শেষ হলে হয়ত কিছু হয়ে থাকে। কিন্তু ব্যাপারটা এমন নয় যে সবার সামনে ঘাসের মধ্যে ব্যস্ত হয়ে পড়বে কেউ।”

আইরিশ অলিম্পিয়ানের কথায় কিছু কৌতুহল তো মিটল। কিন্তু আরেকটি প্রশ্ন যে থাকছে! এত কনডম তাহলে গেল কোথায়? উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করেছেন রিও অলিম্পিকের একটি সূত্র, “আসলে প্রত্যেক অ্যাথলেটই স্যুভেনির হিসেবে অনেক কনডম নিয়ে দেশে ফেরেন।”

Print Friendly, PDF & Email