রোইং-এর চূড়ান্ত পর্যায়ে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু

স্পোর্টস লাইফ, প্রতিবেদক ‘ক্রমাগত ইতিবাচক পরিবর্তন হচ্ছে বাংলাদেশের। দেশের উন্নয়নের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে ক্রীড়াঙ্গন। সেই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদও তৃণমুলের মেধাবী মুখ খুঁজে নিতে প্রকল্প গ্রহণ করেছে।

এই প্রকল্পের আওতায় রোইং ফেডারেশনও কাজ করে যাচ্ছে। তৃণমূল থেকে উঠে আসছে আগামী দিনের তারকা।’ আজ বুধবার (৭ডিসেম্বর) বাংলাদেশ রোইং ফেডারেশন তৃণমূলে প্রতিভা অন্বেষণের চূড়ান্ত পর্যায়ের প্রশিক্ষণ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ সচিব (যুগ্মসচিব) অশোক কুমার বিশ্বাস এই কথা বলেছেন।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রেখেছেন রোইং ফেডারেশনের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোল্লা মোহাম্মদ আবু কাওছার, সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. খোরশেদ আলম প্রমূখ।

ক্রীড়া পরিষদের সচিব (যুগ্ম সচিব) অশোক কুমার বিশ্বাস অারো বলেন, ‘বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। এখানে আবাহমানকাল থেকে নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। রোইং নিয়ে কাজ করার বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে। আমি আশা করছি এই কর্মসূচি থেকে প্রতিভাবান খেলোয়াড়দের সমাগম ঘটবে।’

রোইং ফেডারেশনের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোল্লা মোহাম্মদ আবু কাওছার জানিয়েছেন, ‘ফেডারেশনের উদ্যোগে ১০টি জেলায় তৃণমূলের প্রতিভা অন্বেষণ কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

nsc-01

প্রথম ধাপে ৩০জন করে প্রতি জেলা থেকে খেলোয়াড় বাছাই করা হয়েছে। তাদের মধ্যে থেকে পর্যায়ক্রমে ২০জন, ১০জন সর্বশেষ প্রতিজেলা থেকে ২জন করে মোট ২০জনকে নিয়ে চূড়ান্ত পর্যায়ের কর্মসূচি শুরু হয়েছে। চলবে প্রথম ধাপে ১০ দিন।

সকালে বুড়িগঙ্গা নদীতে আর বিকালে ইনডোরে প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হবে। ইনডোরে খেলোয়াড়রা আর্গোমিটারে অনুশীলন করবেন।’ একই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ফিতা কেটে বাংলাদেশ রোইং ফেডারেশনের নতুন অফিস উদ্বোধন করেন।

উল্লেখ্য, ‘খেলার মাঠ উন্নয়ন ও সংস্কার এবং প্রশিক্ষণ কাজে বিশেষ সহায়তা’র আওতায় ১৫.১০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৩টি কর্মসূচির মাধ্যমে মোট ৩১টি ডিসিপ্লিনে ‘তৃণমূল পর্যায় থেকে বাছাইকৃত প্রতিভাবান খেলোয়াড়দের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি ২০১৫-১৬’ হাতে নিয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email