রোনালদোর মাইলফলকের ম্যাচে রিয়ালের বড় জয়

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক : পিএসজির বিপক্ষে সামনেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের বড় ম্যাচ। কিন্তু বিশ্রামের কি আর বালাই আছে! তাই ইনজুরি আশঙ্কা থাকলেও পুঁচকে গেতাফের বিপক্ষে রোনালদো, বেনজেমা, বেলকে রেখেই একাদশ ঘোষণা করলেন জিদান। ফলও পেলেন হাতে নাতে। এক ম্যাচ পর আবারো লা লিগায় ছন্দে ফিরলো রিয়াল মাদ্রিদ। গেতাফেকে ঘরের মাঠে ৩-১ গোলে হারালো রিয়াল। দলের হয়ে জোড়া গোল করেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো।

ঘরের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যু স্টেডিয়ামে ফ্যানদের তিক্ত ভালোবাসা মাথায় নিয়ে দল নামিয়েছিলেন জিদান। কেননা এস্পানিওলের বিপক্ষে দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের বসিয়ে রেখে শেষ সময়ের গোলে হার বরণ করে নিতে হয়েছিল রোনালদোবিহীন রিয়াল মাদ্রিদকে। কিন্তু এবার আর ভুল করেননি জিদান। দলের মূল খেলোয়াড়দের দিয়েই গেতাফেকে বসে আনলেন জিদান।

গোলের জন্য অবশ্য বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি রিয়ালকে। ২১ মিনিটেই ইস্কোর বাড়ানো বল থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন গ্যারাথ বেল। এর পরেই শুরু হয় রোনালদো ম্যাজিক। প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার এক মিনিট আগে দলের হয়ে দ্বিতীয় গোলটি করেন সিআরসেভেনে। যা লা লিগায় রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে তার ৩০০তম গোল। ২৮৬ ম্যাচ খেলে এই মাইলফলক স্পর্শ করেন তিনি যা মেসির থেকে ৪৮ ম্যাচ কম। ২-০ গোলে এগিয়ে থেকেই প্রথমার্ধ শেষ করে রিয়াল।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গেতাফের লইক রেমি লাল কার্ড খেয়ে মাঠ ছাড়লে ১০ জনের দলে পরিণত হয় তারা। কিন্তু সুযোগ নেওয়ার বদলে স্রোতের বিপরীতে উলটো পেনাল্টি থেকে গোল হজম করে বসে রিয়াল মাদ্রিদ। রাইট উইং দিয়ে গেতাফের খেলোয়াড় মলিনা বল নিয়ে পেনাল্টি বক্সের ভেতরে এগিয়ে যাওয়ার সময় তাকে ফাউল করে বসেন রিয়াল ডিফেন্ডার নাচো। ফলে পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে ম্যাচে ফেরার ইঙ্গিত দেন পরতিল্লো। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি কেননা দিনটি যে ছিল রোনালদোর।

ম্যাচের ৭৯ মিনিট মার্সেলোনার অসাধারণ একটি ক্রসে হেড থেকে গোল করে দলকে ৩-১ গোলের জয় এনে দেন ৩৩ বছর বয়সী রোনালদো। এই জয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার সঙ্গে পয়েন্ট ব্যবধান কমিয়ে ১২ তে নিয়ে আসলো রিয়াল মাদ্রিদ। আজ তাই অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে বার্সেলোনার লড়াইয়ে তাই চোখ রাখতে হচ্ছে জিদান শিষ্যদের। তাছাড়া পিএসজিকেও একটা বার্তা দিয়ে রাখলো চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সর্বকালের সেরা এই দলটি।

Print Friendly, PDF & Email