শেষ বলে রোমাঞ্চকর জয় পেল শাইনপুকুর

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক : শেষ ওভারে প্রয়োজন ৭ রান। প্রথম চার বলে এলো ৬ রান। শেষ ২ বলে যখন দরকার মাত্র ১ রান, তখন পঞ্চম বলে শাইনকপুকুর ক্রিকেট ক্লাবের নবম উইকেট তুলে নিয়ে মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে চাপা উত্তেজনা তৈরি করে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। অবশ্য রায়হান উদ্দিন ওই ওভারের দ্বিতীয় বাউন্ডারি মেরে শ্বাসরুদ্ধকর জয় এনে দেন শাইনপুকুরকে।

শেষ বলে ১ উইকেটে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে চতুর্থ জয় পেলো তারা এবং রূপগঞ্জকে টপকে উঠে গেল তিনে। দুই দলেরই সমান ৮ পয়েন্ট।

টসে হেরে আগে ব্যাটিং করা রূপগঞ্জ ৫০ ওভারে তিন উইকেট হারিয়ে ২৬৮ রান করে। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ওপেনার নাঈম শেখ সর্বোচ্চ ৯৩ রান করেন। ১৩০ বলে ৮ চার ও ৩ ছয়ে তিনি তার ইনিংসটি সাজান। নাঈম ছাড়াও ভারতীয় ব্যাটসম্যান পারভেজ রসূল খেলেছেন ৮৮ রানের ইনিংস।

রূপগঞ্জের বোলারদের মধ্যে নাঈম ইসলাম জুনিয়র, শুভাগত হোম ও রায়হান উদ্দিন প্রত্যেকে একটি করে উইকেট নিয়েছেন।

২৬৯ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে শাইনপুকুর। ৬২ রানে তিন উইকেট হারালেও শাইনপুকুরের ওপেনার সাদমান ইসলাম একপ্রান্ত আগলে রাখেন। শেষ পর্যন্ত তিনি ৯৫ রানে আউট হওয়ার আগে চতুর্থ উইকেটে ভারতীয় ব্যাটসম্যান উদয় কৌলের সঙ্গে ১২১ রানের জুটি গড়েন। তাতেই জয়ের সুবাস পাচ্ছিল প্রথম বিভাগ থেকে উঠে আসা দলটি। কিন্তু উদয় ৬১ রানে ফিরে যাওয়ার পর সাদমানও বিদায় নেন। আর তাতেই ছন্দপতন ঘটে শাইনপুকুরের ব্যাটিং অর্ডারের।

আফিফের ২৯, শুভাগতর ১৮ ও সাইফউদ্দিনের ১৯ রানের পরও হারের শঙ্কায় শেষ সময় কেটেছে শাইনপুকুরের। শেষ পর্যন্ত শেষ ওভারে রায়হানের দুই চার সব শঙ্কা কাটালো। ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে তাদের স্কোর ছিল ২৭২ রান।

রূপগঞ্জের মোহাম্মদ শহীদ ৫০ রানের বিনিমিয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নিয়েছেন। এছাড়া পারভেজ ও মোশাররফ হোসেন নিয়েছেন দুটি করে উইকেট।

সেঞ্চুরির জন্য ৫ রানের আক্ষেপ থাকলেও ম্যাচসেরা হয়েছেন শাইনপুকুরের সাদমান।

 

Print Friendly, PDF & Email