সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে ডোপমুক্ত ক্রীড়াঙ্গন গড়ে তুলি : যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

স্পোর্টস লাইফপ্রতিবেদক : ‘বিশ্বব্যাপী ডোপমুক্ত ক্রীড়াঙ্গন গড়ে তোলার লক্ষ্যে বিশ্ব অ্যান্টি ডোপিং এজেন্সি তাদের কার্যক্রম অব্যাহত রাখছে। এই ডোপিং বিরোধী আন্দোলনে বাংলাদেশও সামিল।

এই কার্যক্রমের মাধ্যমে এদেশের খেলোয়াড় কোচ এবং কর্মকর্তারা ডোপিং এবং অ্যান্টি ডোপিং সম্পর্কে সচেতন হতে পারবেন। বিশেষ করে এদেশের ক্রীড়াঙ্গনের নৈতিক মূল্যবোধ সৃষ্টি করতে এ ধরনের কর্মশালা কার্যকর ভুমিকা পালন করবে। আসুন আমরা সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে ডোপমুক্ত ক্রীড়াঙ্গন গড়ে তুলি।’

আজ মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর) সকালে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সম্মেলন কক্ষে (৫ম তলা) অনুষ্ঠিত ‘ডোপিং বিরোধী শিক্ষা এবং সচেতনতামূলক কর্মশালা’-র প্রধান অতিথি যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. শ্রী বীরেন শিকদার এমপি এ কথাগুলো বলেছেন।

যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ অলিম্পিক এ্যাসোসিয়েশনের যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় আরো উপস্থিত ছিলেন ছিলেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী আখতার উদ্দিন আহমেদ, যুগ্ম সচিব মোঃ ওমর ফারুক, বাংলাদেশ অলিম্পিক এ্যাসোসিয়েশনের ডা. জাকির আহমেদ, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব (যুগ্মসচিব) অশোক কুমার বিশ্বাস, ক্রীড়া পরিদপ্তরের পরিচালক (যুগ্মসচিব) মো. আবুল হাশেম, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের অর্থ পরিচালক (যুগ্মসচিব) সহিদ উল্লাহ, ইউনেস্কোর প্রতিনিধি ড. হাফেজা আক্তার প্রমূখ।

doping

দীর্ঘ কর্মশালা মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেছেন ডা. শফিকুর রহমান। এছাড়া বিভিন্ন সেশনে বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মোঃ ওমর ফারুক, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব রণজিৎ কুমার বিশ্বাস। কর্মশালায় ক্রীড়াঙ্গনের প্রায় ৩০০ জন খেলোয়াড়, কোচ, সংগঠক ও কর্মকর্তারা অংশ নিয়েছেন।

ইউনেস্কোর সহযোগিতায় বাংলাদেশের ৩টি ভেন্যুতে ডোপিং বিরোধী শিক্ষা এবং সচেতনতামূলক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ইতোমধ্যে ১৯ নভেম্বর বিকেএসপিতে এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সর্বশেষ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে ২৬ নভেম্বর চট্টগ্রামে।

Print Friendly, PDF & Email