সুস্থ হতে অস্ত্রোপচার লাগবে নাসিরের

স্পোর্টস লাইফ, ডেস্ক : সিরাজগঞ্জে বন্ধুর বিয়েতে গিয়েছিলেন নাসির হোসেন।  সেখানেই ফুটবল খেলতে গিয়ে ডান হাঁটুর লিগামেন্ট ছিঁড়ে গেছে তার।  চোট এমনই গুরুতর যে কমপক্ষে ৬ মাসের জন্যে মাঠের বাইরে চলে গেছেন এই অলরাউন্ডার! চোট সারাতে চিকিৎসকের ছুরির নিচেই যেতে হবে তাকে।

এমন যে হবে- সেই আশঙ্কা গতকাল প্রকাশ করেছিলেন বিসিবির চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী।  সোমবার বিকালে নাসিরের হাঁটুর এমআরআই করা হয়েছে। মঙ্গলবার এমআরআই রিপোর্ট হাতে পেয়ে বিসিবির এই চিকিৎসক নাসিরের অস্ত্রোপচার লাগবে বলেই জানান, ‘এমআরআই রিপোর্ট দেখে আমরা নিশ্চিত হতে পেরেছি নাসিরের এসিএল (লিগামেন্ট) পুরোপুরি ছিঁড়ে গেছে। ওর হাঁটুতে অস্ত্রোপচার করতে হবে। বিভিন্ন জায়গায় যোগাযোগ করছি, জানার চেষ্টা করছি কোথায় সার্জারি করালে ভালো হবে।’

কোথায় সার্জারি হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা সার্জারির জন্য অ্যাপয়েনমেন্ট নেওয়ার চেষ্টা করছি। দেশেও ভালো চিকিৎসা হচ্ছে কিন্তু আমরা সাধারণত অস্ট্রেলিয়া কিংবা থাইল্যান্ডে পাঠিয়ে থাকি।’

দেবাশীষ চৌধুরী মনে করেন নাসিরের দ্রুততম সময়ের মধ্যেই সার্জারি করা উচিত, ‘সার্জারি দ্রুত করাতে পারলে ভালো। তবে এটি গুরুতর অপারেশন না। সে কয়েকদিন বিশ্রামে থাকবে। আমরা যদি বাইরে পাঠাই; তাহলে ভিসা প্রসেস করতে কয়েদিন সময় তো লাগবেই।’

দ্রুত অপারেশন করলেও মাঠে ফিরতে ফিরতে ৬ মাস লেগে যাবে নাসিরের-এমনটি জানিয়ে এই চিকিৎসক আরও বলেন, ‘অপারেশন সম্পন্নের পর ৬ মাসের মতো সময় লাগবে খেলায় ফিরতে।’

সার্জারি হওয়ার পর খেলায় ফিরতে সমস্যা হবে না নাসিরের। এই ধরনের ইনজুরিতে মাশরাফিও পড়েছিলেন বলে জানালেন দেবাশীষ চৌধুরী, ‘হকি, বাস্কেটবল, ফুটবল খেলোয়াড়দের এসিএল ইজুরিতে পড়ার শঙ্কা বেশি থাকে। অনেকেই পড়েছে এবং তারা আবার খেলায় ফিরেছে। ভালো অপারেশন হলে আবার ফিরে আসতে পারে। মাশরাফির পর জাতীয় দলে এসিএল ইনজুরি নেই।  ঘরোয়া ক্রিকেটে ১০-১২ জনের এমন অপারেশন হয়েছে, যারা সবাই খেলায় ফিরে এসেছে।’

Print Friendly, PDF & Email