হিগুয়েইনকে রেখেই দল ঘোষণা আর্জেন্টিনার

স্পোর্টস লাইফ ডেস্ক : বিশ্বকাপ বাছাইয়ের সর্বশেষ দুই ম্যাচে ছিলেন না। আর্জেন্টিনার নতুন কোচ কারণ ব্যাখ্যা না করলেও তাঁর ঘোষিত প্রথম দলে হিগুয়েইনের না থাকা অনেকের কাছে ইঙ্গিতবহ মনে হয়েছিল। বারবার হিগুয়েইনের ব্যর্থতার কত খেসারত আর দেবে আর্জেন্টিনা? আসল কারণ যা-ই হোক, নিজের ফর্ম দিয়েই হিগুয়েইন আবারও আর্জেন্টিনা দলে জায়গা করে দিলেন। আগামী মাসের দুটি বাছাইপর্বের ম্যাচে হিগুয়েইনের পাশাপাশি ডাক পেয়েছেন ম্যান সিটির হয়ে এবার ৫ ম্যাচে ৯ গোল করে ফেলা সার্জিও আগুয়েরোও।

নতুন মৌসুম শুরুর আগে হিগুয়েইনকে নিয়ে কম সমালোচনা হয়নি। জুভেন্টাস প্রায় নয় কোটি ইউরো দিয়ে তাঁকে কিনে ভুল করেছে, এমন কথাও শুনতে হয়েছে। আর মুটিয়ে যাওয়ার জন্য খোঁচা তো আছেই। মাঠেই সব সমালোচনার জবাব দিয়েছেন ‘মোটা’ হিগুয়েইন, জুভেন্টাসের জার্সি গায়ে নতুন মৌসুমের প্রথম চার শটেই করেছেন তিন গোল।

আর্জেন্টিনা কোচ এদগার্দো বাউজাও বুঝতে পেরেছেন, হিগুয়েইন আবার নিজেকে ফিরে পাচ্ছেন। পেরু ও প্যারাগুয়ের সঙ্গে পরের মাসের শুরুতে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দুই ম্যাচের জন্য তাই রাখা হলো এই ‘নাম্বার নাইন’কে। বাউজাই বলেছেন, ‘আমি হিগুয়েইনের সঙ্গে কথা বলেছি, সবকিছুই ভালোমতো হয়েছে। ও খুবই উৎসাহী, মাঠে ফিরতে ওর আর তর সইছে না।’

স্পোর্টস লাইফ ডেস্ক :অবশ্য পেশির চোটের জন্য বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে খেলতে পারেননি। তবে সিটির হয়ে দারুণ খেলছেন, চ্যাম্পিয়নস লিগের সর্বশেষ ম্যাচেও করেছেন হ্যাটট্রিক। বাউজার ২৪ সদস্যের দলে তাই ডাক পেয়েছেন। চোটের জন্য এবারও নেই পিএসজি মিডফিল্ডার হাভিয়ের পাস্তোরে। হিগুয়েইনের জুভেন্টাস সতীর্থ পাউলো দিবালা জায়গা পেলেও ইন্টার মিলান স্ট্রাইকার মাউরো ইকার্দি উপেক্ষিতই থেকে গেছেন। আর লিওনেল মেসি তো আছেনই। লাল কার্ডের নিষেধাজ্ঞা পেরিয়ে আবারও জাতীয় দলে ফিরবেন দিবালা।
আর্জেন্টিনা কোচ এই দলে স্থানীয় খেলোয়াড়দের রাখেননি। তাঁদের নাম পরে আলাদা করে ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন। আগামী ৬ অক্টোবর পেরুর সঙ্গে প্রথম ম্যাচ, পাঁচ দিন পর প্রতিপক্ষ প্যারাগুয়ে। এই মুহূর্তে দক্ষিণ আমেরিকার বিশ্বকাপ বাছাইয়ে পয়েন্ট তালিকার তিনে আছে আর্জেন্টিনা। শীর্ষে থাকা উরুগুয়ের চেয়ে পিছিয়ে আছে মাত্র এক পয়েন্টে। ব্রাজিলের সঙ্গে সমান পয়েন্ট হলেও পিছিয়ে আছে গোল ব্যবধানে।

২৪ জনের আর্জেন্টিনা দল
গোলরক্ষক: সার্জিও রোমেরো (ম্যান ইউনাইটেড), নাহুয়েল গুজমান (তিগ্রেস)
ডিফেন্ডার: ফাকুন্দো রোনকাগলিয়া (সেল্টা ভিগো), মাতেও মুসাচ্চিও (ভিয়ারিয়াল), রামির ফিউনেস মোরি (এভারটন), মার্কোস রোহো (ম্যান ইউনাইটেড), মার্টিন ডেমিচেলিস (এসপানিওল), পাবলো জাবালেতা (ম্যান সিটি), গ্যাব্রিয়েল মেরকাদো (সেভিয়া), নিকোলাস ওটামেন্ডি (ম্যান সিটি)
মিডফিল্ডার: মাতিয়াস ক্রানেভিতার (সেভিয়া), হাভিয়ের মাচেরানো (বার্সেলোনা), লুকাস বিলিয়া (লাৎসিও), অগাস্তো ফার্নান্দেজ (অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ), এভার বানেগা (ইন্টার মিলান), এরিক লামেলা (টটেনহাম), নিকোলাস গাইতান (অ্যাটলেটিকো), অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া (পিএসজি)
ফরোয়ার্ড: লিওনেল মেসি (বার্সেলোনা), অ্যাঙ্গেল কোরিয়া (অ্যাটলেটিকো), গঞ্জালো হিগুয়েইন (জুভেন্টাস), সার্জিও আগুয়েরো (ম্যান সিটি), পাউলো দিবালা (জুভেন্টাস), লুকাস প্রাতো (অ্যাটলেটিকো মিনেইরো)।

Print Friendly, PDF & Email