২৪৪ রানের লিড নিয়ে লাঞ্চে বাংলাদেশ

স্পোর্টস লাইফ, প্রতিবেদক তৃতীয় দিনের প্রথম সেশনে অনেক ঘটনাই ঘটলো। ১১৬ রান এল ২৯.৩ ওভারে। দারুণ কিছু শট দেখা গেল। ক্যাচের চারটি সুযোগ মিস হলো। দুটি রিভিউ মিস হলো। শেষে ইংল্যান্ড একের পর এক আঘাত হানলো। যদিও এই সেশনে ৪ উইকেট হারাতে হলো তারপরও বাংলাদেশের লিডটা চমৎকার। ২৪৪ রানের। ৭ উইকেটে ২৬৮ রান নিয়ে লাঞ্চে গেছে তারা।

৩ উইকেটে ১৫২ রান নিয়ে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে শুরু এই দিনটা। ১২৮ রানের লিড তখন স্বাগতিকদের। প্রথম ঘণ্টার প্রায় পুরোটা কাটলো নিরাপদে। চতুর্থ উইকেটে ইমরুল কায়েস ও সাকিব আল হাসান ৪৮ রানের জুটি গড়লেন ১৪.১ ওভারে।

দলের রান ২০০ হলো। কিন্তু তারপর বিপদ আসে দল বেধে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আরেকটি সেঞ্চুরির সুবাস পাচ্ছিলেন ইমরুল। দারুণ ধৈর্য্য নিয়েই খেলছিলেন। কিন্তু মঈন আলির নিচু হয়ে যাওয়া বল মিস করে এলবিডাব্লিউর শিকার তিনি। ১২০ বলে ৯ বাউন্ডারিতে ৭৮ রানে শেষ হলো ইমরুলের ইনিংসটা।

ওখান থেকে অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ও সাকিব ২৩৮ রান পর্যন্ত নেন দলকে। তারপর জোড়া ধাক্কা। ব্যক্তিগত ২৩ রানে ক্যাচ দিয়েও বেন ডাকেটের জন্য বেঁচে গিয়েছিলেন সাকিব। সেখান থেকে বেশি দূর যাওয়া হলো না। ৪১ রানের সময় আদিল রশিদের টার্নিং বলটা বোল্ড করে ছাড়লো তাকে। ৮১ বলে ৬ বাউন্ডারিতে ওই রান সাকিবের। দলের ওই ২৩৮ রানেই অযথা বেন স্টোকসের লাফিয়ে ওঠা বলেক খোঁচায় স্লিপে অ্যালিস্টার কুকের হাতে তুলে দিলেন মুশফিক। ৪ ও ৯ রান দিয়ে শেষ হলো তার ক্যারিয়ার মাইলস্টোন ৫০তম টেস্টের ব্যাটিং।

২৩৮ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে বিপদে বাংলাদেশ। সাব্বির রহমান ও শুভাগত হোমের ওপর তখন অনেক কিছু নির্ভর করে। ৩০ রান আসলো এই জুটিতে। কিন্তু লাঞ্চের দরজায় টোকা দিয়ে সাব্বির ব্যক্তিগত ১৫ রানে আদিলের দ্বিতীয় শিকার। ধাক্কা খেয়েই আহারে গেল বাংলাদেশ।

Print Friendly, PDF & Email